ব্রাজিলের নিহত খেলোয়াড়দের জন্য শোক

ছবির কপিরাইট AFP/GETTY IMAGES
Image caption ক্লাবটির হাজার হাজার ভক্ত গায়ে জার্সি জড়িয়ে মাঠে জড়ো হয়।

ব্রাজিলের শাপেকোয়েন্সে ক্লাবটি তাদের ইতিহাসের সবচাইতে বড় ম্যাচ দক্ষিণ আমেরিকার ক্লাব কাপের ফাইনাল খেলতে যাচ্ছিলো।

কিন্তু বিমান দুর্ঘটনার পর দলের মাত্র তিনজন খেলোয়াড় বেঁচে গেছেন। তবে খুব গুরুতর আঘাত নিয়ে।

কিংবদন্তি ফুটবলার পেলে এবং ফিফা প্রেসিডেন্ট জিয়ান্নি ইনফান্তিনো বলেছেন দিনটি ফুটবলের জন্য এক শোক সন্তপ্ত দিন।

ছোট্ট সান্তা ক্যাটারিনা শহরের এই ক্লাবটির হাজার হাজার ভক্ত গায়ে দলের জার্সি জড়িয়ে শহরের স্টেডিয়ামে জড়ো হয়েছেন।

ক্লাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট আইভান তোজ্জো বলছেন পুরো শহর অনেক বড় কিছু হারিয়েছে।

তিনি বলেছেন, মাত্র দুলক্ষ লোকের শহর সান্তা ক্যাটারিনার সকল অধিবাসী কোন কোন ভাবে এই ক্লাবটির সাথে জড়িয়ে আছে। শহরের সবাই ক্লাবটিকে ভালবাসে।

দলটি যখন খুব ভাল করছিলো ঠিক তখনই খেলোয়াড়দের এমন মৃত্যু সবার জন্যেই বিশাল বিপর্যয়ের খবর।

শাপেকোয়েন্সে দলটি দক্ষিণ আমেরিকান ক্লাব ফুটবলের ফাইনাল খেলার জন্য কলোম্বিয়ার মেডেইন শহরে যাচ্ছিলো।

ছবির কপিরাইট AP
Image caption কলম্বিয়ার একটি পার্বত্য এলাকায় বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে।

শহরটির বাইরে একটি পার্বত্য এলাকায় বিমানটি বিধ্বস্ত হয়ে ৭৭ জন যাত্রীর ৭১ জনই নিহত হয়েছে।

স্থানীয় সময় সোমবার রাত সোয়া দশটার দিকে মেডেইন বিমানবন্দরের কন্ট্রোল টাওয়ারকে বৈদ্যুতিক ত্রুটির কথা জানান বিমানের পাইলট।

এর পরই বিমানটির সাথে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

বার্সেলোনা তারকা লিওনেল মেসি ও নেইমার, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ওয়েইন রুনি নিহত খেলোয়াড়দের প্রতি সম্মান জানিয়েছেন।

ব্রাজিলে তিন দিনের শোক ঘোষণা করা হয়েছে।

ফাইনাল খেলাটি যখন হওয়ার কথা ছিলো ঠিক তখন দলটির সকল ভক্তকে মাঠে সাদা কাপড় পড়ে এসে সম্মান জানানোর আহবান জানিয়েছে দলটির কর্মকর্তারা।

ক্লাবটি যাত্রা শুরুর আগে দলের কোচ ফেসবুকে একটি ভিডিও পোষ্ট করেছিলেন।

সেখানে তিনি বলছিলেন দলটির জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচ।

তবে সেই ম্যাচ খেলা না হলেও শাপেকোয়েন্সে ক্লাবটিকে সম্ভবত জয়ী ঘোষণা করা হচ্ছে।