কৃষ্ণকে 'নারী উত্যক্তকারী' বলে আইনজীবী বিপাকে

ছবির কপিরাইট Twitter
Image caption কৃষ্ণকে নিয়ে টুইট করে বিপাকে পড়েছেন আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণ

উত্তরপ্রদেশে বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ক্ষমতা নেয়ার পর বখাটেদের শায়েস্তা করতে যে "রোমিও বাহিনী" নামানো হয়েছে তার সমালোচনায় এক টুইট করেন শীর্ষ আইনজীবী এবং রাজনীতিক প্রশান্ত ভূষণ।

ঐ টুইটে তিনি লেখেন -- রোমিও তো শুধু একজন নারীকে ভালবাসতো, কিন্তু কৃষ্ণতো "লেজেন্ডারি ইভ টিজার" অর্থাৎ কিংবদন্তির নারী উত্যক্তকারী ছিলেন।

গতকাল তার এই টুইটের সাথে সাথেই কট্টর হিন্দুদের কাছ থেকে সমালোচনা আর গালিগালাজের মুখে পড়ে যান প্রশান্ত ভূষণ।

এরপর আজ (সোমবার) দিল্লি বিজেপির মুখপাত্র তাজিন্দর পাল বাগ্গা পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন যে মি ভূষণ ভগবান কৃষ্ণের অবমান করেছেন এবং হিন্দুদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছেন।

পুলিশ অভিযোগ নিয়েছে, কিন্তু এখনও এফআইআর করেনি।

চাপের মুখে প্রশান্ত ভূষণ এখন বলার চেষ্টা করছেন হিন্দু ধর্ম বা কৃষ্ণকে অপমান করার কোনো উদ্দেশ্য তার ছিলনা। তিনি শুধু বলার চেষ্টা করেছেন যে, উত্তর প্রদেশে যে যুক্তিতে রোমিও স্কোয়াড নামানো হয়েছে, সেই বিচারে কৃষ্ণকেও উত্যক্তকারী মনে হতে পারে।

টুইটারে তিনি লিখেছেন, তিনি নিজে ধর্মীয় আচার পালন না করলেও তার মা করেন, এবং ছেলেবেলা থেকে তিনি ভগবান কৃষ্ণের গল্প-গাঁথা শুনে বড় হয়েছেন।

টুইটারে কৃষ্ণের একটি বাঁধানো ছবি পোষ্ট করে মি ভূষণ লিখেছেন এই ছবি তাদের বাড়ির দেয়ালে টাঙানো রয়েছে।

Image caption উত্তরপ্রদেশে বখাটে দমনে পুলিশের রোমিও স্কোয়াড

উত্তর প্রদেশে বখাটে দমনের যুক্তিতে পুলিশের রোমিও স্কোয়াড নিয়ে তরুণ যুবকদের মধ্যে চরম আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। মেয়েদের স্কুল কলেজের সামনে, রাস্তার মোড়ে, বাজার-ঘাটে সন্দেহবশত তরুণ যুবকদের ধরে হেনস্থা করার অভিযোগ উঠেছে।

এমনকী প্রেমিকা বা বান্ধবীর সামনেই অনেক তরুণকে কান ধরে উঠবস করানোর ঘটনাও ঘটেছে।হিন্দু দেবতা কৃষ্ণকে "কিংবদন্তি-সম" নারী উত্যক্তকারী বলে মন্তব্য করে বিপাকে পড়েছেন ভারতের অন্যতম শীর্ষ আইনজীবী এবং রাজনীতিক প্রশান্ত ভূষণ।

সম্পর্কিত বিষয়