লন্ডনে আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য সহায়তা ‘পর্যাপ্ত ছিলো না’: টেরিজা মে

নিখোঁজদের ছবি লাগানো দেয়ালে। তার সামনে এক নারী। ছবির কপিরাইট AFP
Image caption মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

লন্ডনে বুধবার ভোরে একটি বহুতল ভবনে আগুন লাগার পর ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদেরকে যে সহায়তা দেয়া হয়েছে তা 'পর্যাপ্ত ছিল না' বলে স্বীকার করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে।

অগ্নিকাণ্ডে সহায়সম্বলহীন ও গৃহহারা হয়ে পড়া মানুষজন এবং স্বেচ্ছাসেবীরা ডাউনিং স্ট্রিট-এ প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাত করেন।

ক্ষতিগ্রস্ত ও স্বেচ্ছাসেবীদের সাথে সাক্ষাতের পরই একটি বিবৃতি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নিজেদের 'অপর্যাপ্ত সহায়তার' কথা স্বীকার করেন।

এদিকে, পুলিশ বলছে, পশ্চিম লন্ডনে গ্রেনফেল টাওয়ারের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এখনো পর্যন্ত ঠিক কতজন নিহত হয়েছেন বা নিখোঁজ রয়েছেন সেই সংখ্যাটি স্পষ্ট নয়।

কিন্তু সব মিলিয়ে মোট ৫৮ জন নিখোঁজ রয়েছে বলে পুলিশ জানাচ্ছে। যে ৫৮ জনকে নিখোঁজ ভাবা হচ্ছে তাদের নিহত হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি বলে আশঙ্কা করছে পুলিশ।

লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের কমান্ডার স্টুয়ার্ড কান্ডি বলেছেন, এই সংখ্যাটি আরো বাড়তে পারে।

পুড়ে যাওয়া ফ্ল্যাট ও ব্লকগুলোতে পুনরুদ্ধার অভিযান আবারো শুরু হয়েছে এবং এতে অন্তত সপ্তাহ খানেক লাগতে পারে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

তবে, পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে বিবিসি মনে করছে, মৃতের সংখ্যাটি ৭০ হতে পারে।

আরো পড়ুন:

টিভিতে কত লোকে দেখবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনাল?

লন্ডন আগুন: মৃতের সংখ্যা ৫৮, চাপের মুখে সরকার

লন্ডনের আগুন কীভাবে ভাঙল তানিমার বিয়ের স্বপ্ন

লন্ডনে আগুন: জানালা দিয়ে ছুঁড়ে ফেলা হয়েছে শিশুদের