আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

বালির অপহরণ প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশের আইনমন্ত্রী

মানবতাবিরোধী অপরাধে দন্ডিত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মামলায় সুখরঞ্জন বালি প্রথমদিকে রাষ্ট্রপক্ষের একজন গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষী ছিলেন ।

পরে তিনি পক্ষ বদল করেন, এবং বিবাদি পক্ষ অভিযোগ করে যে এরপরই সরকারের গোয়েন্দা সংস্থা তাকে অপহরণ করে।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে মিঃ সাঈদীর মামলায় সাক্ষ্য দেওয়ার ঠিক আগে তিনি নিখোঁজ হন ।

এরপর অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশের দায়ে মিঃ বালিকে গ্রেপ্তার করে কলকাতার দমদম কেন্দ্রীয় কারাগারে সাজা খাটতে পাঠানো হয়।

সাজার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পরে, কয়েকমাস আগে জেল থেকে পাঠানো বলে কথিত একটি বয়ানে তিনি অভিযোগ করেন যে তাঁকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সামনে থেকে অপহরণ ক'রে নিপীড়ন করে বাংলাদেশের গোয়েন্দা সংস্থাগুলি, আর তারপরে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর হাতে তুলে দেওয়া হয়৻

এই অভিযোগের কী জবাব রয়েছে সরকারের কাছে?

বিবিসি বাংলার মাসুদ হাসান খান জিজ্ঞেস করেছিলেন বাংলাদেশের আইনমন্ত্রী শফিক আহমেদকে।