গাজীপুরে গার্মেন্টস কারখানা ভবনে অগ্নিকান্ড

  • ২৯ নভেম্বর ২০১৩
bd garments fire
Image caption আগুন নেভাচ্ছে দমকল বাহিনী

বাংলাদেশের গাজীপুরে গতরাতে একটি বহুতল গার্মেন্টস কারখানা ভবনে আগুনে প্রায় নয়শো কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন কারখানার মালিক।

বেশকিছু গাড়িও এ সময় পুড়ে গেছে। একজন কারখানা মালিক অভিযোগ করেছেন একদল বহিরাগত লোকএই অগ্নিকান্ড ঘটিয়েছে।

স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের এই দশতলা ভবনে ছয়টি কারখানা ছিল এবং সেখানে কাজ করতেন প্রায় ১৪ হাজার শ্রমিক।পুলিশ বলছে, এই ভবনের কারখানাগুলো থেকে পশ্চিমা দেশের বড় বড় ব্র্যান্ডের জন্য পোশাক তৈরি হতো।

দমকল কর্মীরা দীর্ঘ চেষ্টার পর আজ কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

Image caption অগ্নিকান্ডের সময় কারখানা ভবন

আগুনে কেউ মারা জাননি বলে জানিয়েছেন স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের মালিক মোশাররফ হোসেন।

পুলিশ বলছে অগ্নিকান্ডের আগে বেতন বৃদ্ধির দাবিতে বিক্ষোভের সময় দুজন শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে বলে গুজব ছড়ায়। এর পর ক্রুদ্ধ জনতা ভবনটিতে হামলা করে।

মোশাররফ হোসেন অভিযোগ করেন, মিথ্যে গুজব ছড়িয়ে বহিরাগতরা এসে হামলা করে এবং তারাই কারখানায় আগুন ধরিয়ে দেয়।

মি. হোসেন বলেন, ওই বহিরাগতরা একটি মসজিদ থেকে মাইকে ঘোষণা করে যে স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের কারখানায় দুজন লোক মারা গেছে। এর পর তারা ওই ভবনে আগুন লাগিয়ে দেবারা আহ্বান জানায়, এবং হাজার হাজার লোক দেয়াল ভেঙে ভেতরে ঢুকে পড়ে বলে মোশাররফ হোসেন বিবিসি বাংলাকে বলেছেন।

তিনি বলেন, ওই লোকেরা প্রথমে কয়েকটি গাড়িতে, এবং তার পর পোশাক কারখানাতে আগুন লাগায়।

বাংলাদেশ এখন বিশ্বে তৈরি পোশাকের দ্বিতীয় বৃহত্তম রপ্তানিকারক দেশ। তবে সম্প্রতি বেশ কিছু দুর্ঘটনায় বহু শ্রমিকের প্রাণহানির পর কারখানাগুলোর নিরাপত্তা নিয়ে বিশ্বব্যাপি উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে।