আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

বিজ্ঞানের আসর

পানামা খালের বিকল্প

প্রশান্ত এবং আটলান্টিক মহাসাগরকে একসাথে যুক্ত করে রেখেছে পানামা খাল। এখন এই খালের বিকল্প খোঁজার চেষ্টা চলছে। কিন্তু এই পরিকল্পনার তীব্র সমালোচনা করছেন পরিবেশবাদীরা।

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption পানামা খাল উন্নয়নের কাজ চলছে

একশো বছর আগে ২৭ হাজার টন ডায়নামাইট ব্যবহার করে, দুশো মিলিয়ন ঘন মিটার পাথর সরিয়ে, খনন করা হয়েছিলো কৃত্রিম পানামা খাল।

পানামা ইসমাস বা পানামা যোজকের মধ্য দিয়ে এই খালটি তৈরি করা হয়। তখন থেকে, গত এক শতাব্দী ধরে, এই খালটিই হচ্ছে পৃথিবীর পূর্ব আর পশ্চিমের মধ্যে সেতুবন্ধন।

প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টন পন্য বহনকারী জাহাজ চলাচল করে এই খাল দিয়ে।

এই খালটিকে কয়েকবার পুনর্খনন করতে হয়েছে জাহাজ চলাচলের জন্যে উপযোগী রাখতে।

যুক্তরাষ্ট্রে নিউকাসেল বিশ্ববিদ্যালয়ে সমুদ্র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক পোল স্টর্ট বছর দুয়েক আগে এই খালের সমস্যার কথা বিবিসির কাছে ব্যাখ্যা করেছিলেন।

তিনি বলেন, ‘পানামা খালের বড়ো সমস্যা হচ্ছে এর আকার। এই খাল এতো ছোট যে এর ভেতর দিয়ে খুব বেশি জাহাজ চলাচলা করতে পারে না। ভেতরে ঢুকতে পারে না বড়ো কোনো জাহাজ।”

এই খালটি ৮০ কিলোমিটার লম্বা যা প্রবাহিত হচ্ছে পানামা ইসমাসের ভেতর দিয়ে। পানামা ইসমাস আসলে উচু একটি পাহাড়। খালের ভেতরে বসানো লকের সাহায্যে পানির স্তর উপরে উঠিয়ে নিচে নামিয়ে সেখানে জাহাজ চলাচল করে।

ছবির কপিরাইট AP
Image caption বেশি জাহাজ পানামা খালে ঢুকতে পারে না

২০০৭ সালে এই খালটিকে একবার উন্নত করার কাজ হাতে নেওয়া হয়েছিলো। কিন্তু সেই প্রকল্প খুব বেশি দূর এগুতে পারেনি। এখন এর বিকল্প কিছু চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে।

পরিকল্পনা করা হচ্ছে নতুন একটি খাল খননের, যা পানামা খালের মতোই প্রশান্ত ও আটলান্টিক মহাসাগরের মধ্যে সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করবে।

পরিকল্পিত এই খালটি হবে পানামা খালের চেয়েও আরো বেশি লম্বা, প্রবাহিত হবে নিকারাগুয়ার ভেতর দিয়ে।

এই প্রকল্পের পেছনে খরচ হবে প্রায় ৪০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।। চীনের অখ্যাত এক কোম্পানিকে এই খাল খননের কাজ দেওয়া হয়েছে।

কিন্তু নিকারাগুয়া সরকারের এই পরিকল্পনা সমালোচনার মুখে পড়েছে ।

দেশটির বেশ কয়েকজন পরিবেশ বিজ্ঞানী এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন।

বিজ্ঞানীরা বলছেন পরিবেশের জন্যে মারাত্মক ক্ষতির কারণ হতে পারে নতুন এই খাল। যদিও এই খাল দেশের কোন কোন এলাকা দিয়ে প্রবাহিত হবে সেটা এখনও পরিস্কার নয়।

শুনবেন বিস্তারিত।

জায়ান্ট মিলি বাগ

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption পানামা খাল উন্নয়নের কাজ চলছে

বাংলাদেশের ছোট্ট একটি পোকা সম্প্রতি আলোড়নের সৃষ্টি করেছে।

রাজধানী ঢাকায় একটি কলেজের গাছে এই পোকাটি দেখা যাওয়ার পর এনিয়ে সরকারকেও হস্তক্ষেপ করতে হয়েছে।

ওই পোকার আতঙ্কে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে কলেজটিও।

পরে পোকাটি আরো কয়েকটি জায়গাতেও ছড়িয়ে পড়েছে।

পোকাটির নাম জায়ান্ট মিলিবাগ।

এই পোকাটি নিয়ে গবেষণা করছেন শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে, কীটতত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আবদুল লতিফ।

তার সাক্ষাৎকারে রয়েছে এই পোকাটির বৈজ্ঞানিক নানা দিক।

বিজ্ঞানের আসর পরিবেশন করছেন মিজানুর রহমান খান