বুরকিনি বিতর্কে জড়িয়ে পড়লো নগ্নবক্ষা ম্যারিয়ান

প্যারীসের প্লাস দেলা রিপাবলিকে ম্যারিয়ানের প্রস্তরমূর্তি ছবির কপিরাইট গেটি ইমজেস
Image caption প্যারীসের প্লাস দেলা রিপাবলিকে ম্যারিয়ানের প্রস্তরমূর্তি

বুরকিনি বিতর্কে ফ্রান্সের স্বাধীনতার প্রতীক নগ্ন বক্ষা ম্যারিয়ানকে টেনে এনে রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দী এবং ঐতিহাসিকদের সমালোচনার মুখে পড়েছেন প্রধানমন্ত্রী মানুয়েল ভাল্‌স।

মুসলমান নারীদের স্নানের পোশাক বুরকিনি নিয়ে তীব্র বিতর্কের মধ্যেই সম্প্রতি তিনি মন্তব্য করেছেন, ''তার বক্ষ খোলা কারণ তিনি সারা জাতিকে স্তণ্য দান করছেন। তিনি কোন পর্দা করছেন না কারণ তিনি মুক্ত।''

আগামী বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে তার এই মন্তব্য বিরোধীপক্ষের তরফে সমালোচনার সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে।

একজন ইতিহাসবিদ মন্তব্য করেন, ম্যারিয়ানকে ফেমিনিজম বা নারীবাদের প্রতীক হিসেবে বর্ণনা করা মি. ভালসের জন্য মূঢ়তার কাজ হয়েছে।

ফরাসী বিপ্লবের ওপর একজন বিশেষজ্ঞ মাথিল্ডা লেঘে বলেন, ম্যারিয়ান হচ্ছে একটি রূপকল্প এবং তার নগ্ন বক্ষ একটি শৈল্পিক প্রকাশ মাত্র। এর সঙ্গে নারীবাদের কোন সম্পর্ক নেই।

ছবির কপিরাইট Twitter
Image caption এক টুইট বার্তায় থিল্ডা লেঘে মন্তব্য করেন, ম্যারিয়ানকে নিয়ে যার আঁকা ছবি 'লিবার্তে' সবচেয়ে পরিচিত সেই ডেলাক্রোয়া নিজে প্রজাতন্ত্রবাদে বিশ্বাসী ছিলেন না।

গত জুলাই মাসে ফ্রান্সের শহর নীসে জঙ্গী আক্রমণের পর থেকে মুসলমান নারীদের পুরো দেহ ঢাকা স্নানের পোশাক বুরকিনি নিষিদ্ধ করা নিয়ে বিতর্ক ফরাসী রাজনীতিকে আচ্ছন্ন করে রেখেছে।

আগামী বছর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারাভিযান ইতোমধ্যেই শুরু হয়েছে। এই নির্বাচনে একজন রিপাবলিকান প্রার্থী নিকোলাস সার্কোজি বলেছেন, তিনি নির্বাচিত হলে বুরকিনি নিষিদ্ধ করবেন।

একটি সমুদ্র সৈকতে বুরকিনি নিষিদ্ধ করার পর প্রধানমন্ত্রী মানুয়েল ভাল্‌স ঐ শহরের মেয়রের সিদ্ধান্তকেই সমর্থন করেছেন।

তবে ফ্রাসের সর্বোচ্চ প্রশাসনিক আদালত বলছে, বুরকিনি নিষিদ্ধ করা হলে তাতে মানুষের মৌলিক স্বাধীনতা খর্ব হবে।

সম্পর্কিত বিষয়