শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় দেশের মাটিতেই সমাহিত হলেন কবি শহীদ কাদরী

Image caption নিজ দেশে সমাহিত হলেন কবি শহীদ কাদরী

নিজ দেশে এসে শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন কবি শহীদ কাদরী।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে তার মরদেহে শ্রদ্ধা জানিয়েছে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ ও প্রতিষ্ঠান।

এর আগে সকাল নটার দিকে তার মরদেহ বাহী বিমান ঢাকায় এসে পৌঁছায়।

বিমানবন্দর থেকে মৃতদেহ নেয়া হয় বারিধারায় তার বড় ভাইয়ের বাসায়। এরপর সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা জানানোর সুবিধার্থে তাকে নেয়া হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে।

এরপর জানাজা অনুষ্ঠিত হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ প্রাঙ্গণে। পরে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

এর আগে ২৮শে অগাস্ট নিউ ইয়র্কে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান কবি শহীদ কাদরী। কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। এরপর নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি।

সাত দিন আগে উচ্চ রক্তচাপ এবং জ্বর নিয়ে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় নিউ ইয়র্কের নর্থ শোর বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি।

তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।

১৯৬৭ সালে তার প্রথম কবিতার বই উত্তরাধিকার প্রকাশিত হয়। এরপর 'তোমাকে অভিবাদন প্রিয়তমা' এবং 'কোথাও কোন ক্রন্দন নেই' কাব্যগ্রন্থের মাধ্যমে তুমুল জনপ্রিয়তা পান তিনি।

তিনি ১৯৭৩ সালে বাংলা একাডেমী পদক ও ২০১১ সালে একুশে পদক পান। ১৯৭৮ সালের পর থেকেই তিনি প্রবাসী।

ওদিকে জাতীয় কবিতা পরিষদ জানিয়েছে আগামী ৭ই সেপ্টেম্বর কবি শহীদ কাদরীর স্মরণে নাগরিক শোকসভা অনুষ্ঠিত হবে।