টঙ্গীর বয়লার বিষ্ফোরণে নিহতদের অনেকেই পথ চলতি মানুষ

টঙ্গীর বয়লার বিষ্ফোরণ ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption টঙ্গীর বয়লার বিষ্ফোরণের ঘটনাস্থল থেকে আহত একজনকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

বাংলাদেশে ঢাকার কাছে টঙ্গীতে একটি প্যাকেজিং কারখানার বয়লার বিস্ফোরণের পর সৃষ্ট অগ্নিকাণ্ডে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩ জনে।

নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশংকা করছেন কর্মকর্তারা।

আহত হয়েছে অন্তত ৭০ জন।

আগুন এখনো নিয়ন্ত্রণে আসেনি।

টঙ্গির বিসিক শিল্প নগরীতে থাকা ৫ তলা ওই কারখানাটির বেশীরভাগ অংশ ধসে পড়েছে।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত দমকল বাহিনীর কর্মকর্তা আক্তারুজ্জামান বিবিসিকে বলেছেন, নিহতদের মধ্যে ১০-১২ জন বিস্ফোরণের সময় সামনের রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়া পথচারী।

এদের মধ্যে রিকশাওয়ালা, দিনমজুর, পাশের কারখানার শ্রমিকও রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করছিলেন।

এদিকে আহতদের মধ্যে অনেককেই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে এনে ভর্তি করা হয়েছে।

এখানে আনার পর মৃত্যু হয়েছে তিন জনের।

কারখানাটিতে রাতের পালায় শতাধিক শ্রমিক কাজ করছিল বলে জানা যাচ্ছে।

সকালে কাজ শেষ করে এই শ্রমিকদের ঈদের ছুটিতে বাড়ি চলে যাবার কথা ছিল বলে উল্লেখ করছিলেন সংবাদদাতা।

কারখানার ভেতরে কেউ আটকে রয়েছে কী না এখনো স্পষ্ট নয়।

বাংলাদেশে কারখানাগুলোতে বয়লার বিস্ফোরণের ফলে সৃষ্ট দুর্ঘটনার খবর নতুন নয়।

দেশটিতে কারখানাগুলোতে অনিরাপদ বয়লার ব্যাবহারের অভিযোগ বিভিন্ন সময়েই উঠে আসছে।

সম্পর্কিত বিষয়