আমেরিকায় দেড়মাসে ৪ বাংলাদেশি খুন

ছবির কপিরাইট গুগল ম্যাপস
Image caption লস এঞ্জেলস শহরের নর্থ হলিউডের একটি পানীয় দোকানে কাজ করার সময় গুলিতে নিহত হয়েছেন একজন বাংলাদেশী

যুক্তরাষ্ট্রের লস এঞ্জেলস শহরের নর্থ হলিউডে দুর্বৃত্তের গুলিতে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। স্থানীয় পুলিশ বলছে- আবুল কালাম রহিম নামে ওই ব্যক্তি একটি অ্যালকোহল পানীয়ের দোকানে ম্যানেজারের কাজ করতেন।

গত দেড় মাসে এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে চারজন বাংলাদেশি নিহত হলেন। এর আগে তিনজন নিহত হয়েছিলেন নিউ ইয়র্কের কুইন্সে।

নিউ ইয়র্ক থেকে সাংবাদিক লাবলু আনসার বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রে গত দেড় মাসে চারজন বাংলাদেশী খুন হওয়ায় সেখানকার বাংলাদেশীদের মধ্যে একধরণের উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা কাজ করছে। ভীতির মধ্যে এখন প্রবাসী বাংলাদেশীরা বসবাস করছেন।

এর আগে নিউইয়র্কের একটি মসজিদের ইমাম ও একজন নারীসহ তিনজনকে হত্যার ঘটনা ঘটে। সে ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সেসব হত্যার পেছনে ব্যক্তিগত বিরোধের কোন কারণ পাওয়া যায়নি।

তিনি বলেন, একদিন আগেই নিউইয়র্কে মুসলমানদের যে প্যারেড হয়েছে, সেখানেও এই কয়েকজনের হত্যাকাণ্ডে উদ্বেগের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের কাছে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়ার জন্যও তারা অনুরোধ জানিয়েছেন।

লাবলু আনসার জানাচ্ছেন, রোববার ভোর রাতে (বাংলাদেশ সময় রবিবার সন্ধ্যায়) দোকানটি বন্ধ করার সময় একজন পুরুষ আর আরেকজন নারী দোকানটিতে প্রবেশ করেন। সিসিটিভি দেখে পুলিশ বলছে, এদের মধ্যে মেয়েটি তাকে খুব কাছে থেকে তাকে গুলি করে চলে যায়।

দোকানের ভিডিও ফুটেজ দেখে ঘটনাটিকে ডাকাতি বলে সন্দেহ করছে পুলিশ, যদিও দোকান থেকে কোন লুটপাটের ঘটনা ঘটেনি।

সিসিটিভি দেখে ওই দুজনকে গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে বলে জানা গেছে।

১৬ বছর ধরে লস অ্যাঞ্জেলসে বসবাস করে আসছিলেন আবুল কালাম রহিম।

লস অ্যাঞ্জেলসের বাংলাদেশি কম্যুনিটির সদস্যরা সেখানকার পুলিশকে অনুরোধ জানিয়েছেন যাতে, বাংলাদেশী অধ্যুষিত এলাকাগুলোয় টহল পুলিশ আরো বাড়ানো হয়।