কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে কোন রকম হামলার ব্যাপারে ভারতকে হুঁশিয়ারি দিল পাকিস্তান

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption নওয়াজ শরিফ

কাশ্মীর পরিস্থিতিকে কেন্দ্র করে পাকিস্তানে কোনো রকম হামলা চালানোর ব্যাপারে ভারতকে হুঁশিয়ার করে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের সরকার।

ইসলামাবাদে আজ মন্ত্রিসভার এক বৈঠকের পর দেয়া বিবৃতিতে পাকিস্তান বলেছে, তাদের ভাষায় 'ভারতের আগ্রাসী আচরণ' এই অঞ্চলের স্থিতিশীলতাকে নষ্ট করতে পরে।

এ ছাড়া পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর প্রধান বলেছেন, ভারত সীমান্তের পরিস্থিতির ওপর তীক্ষ্ম নজর রাখা হচ্ছে। কোন রকমের অনুপ্রবেশ হলে তার জবাব দেবার জন্য তারা তৈরি আছেন।

ভারতের পক্ষ থেকে পাকিস্তান-নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ-রেখা পার হয়ে জঙ্গি আস্তানায় 'সার্জিক্যাল স্ট্রাইক' বা সুনির্দিষ্ট আক্রমণ চালানোর দাবি করার একদিন পর পাকিস্তানের পক্ষ থেকে এসব সতর্কবাণী দেয়া হলো।

ইসলামাবাদ থেকে বিবিসির সাংবাদিক হারুন রশিদ বলছিলেন, জাতিসংঘের বৈঠক থেকে দেশে ফিরেই আজ নওয়াজ শরিফ মন্ত্রিসভার সাথে বৈঠক করেন - যার মূল বিষয় ছিল কাশ্মীর পরিস্থিতি।

ছবির কপিরাইট Huw Evans picture agency
Image caption কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর সেনা প্রহরা

সভার পর এক বিবৃতিতে বলা হয়, ভারত যে 'সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের' দাবি করছে , এরকম কোন আক্রমণের ঘটনা ঘটে নি।

এতে বলা হয় , ভারত যদি এরকম আক্রমণাত্মক মনোভাব দেখাতে থাকে, তাহলে এ অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠা খুবই কঠিন হয়ে পড়বে। এ ছাড়া কাশ্মীরের ব্যাপারে পাকিস্তানের যে বরাবরের অবস্থান তা এতে তুলে ধরা হয়।

মি. হারুন বলছেন, সোমবার থেকে পাকিস্তুানের প্রধানমন্ত্রী গুরুত্বপূর্ণ কিছু বৈঠক করবেন - যাতে এই সংঘাতপূর্ণ পরিস্থিতি পাকিস্তানের রাজনৈতিক বা সামরিক জবাব কি হবে সেই বিকল্পগুলো আলোচিত হবে।

"এর মধ্যে আছে জাতীয নিরাপত্তা কমিটির বৈঠক, যাতে রাজনৈতিক এবং সামরিক নেতৃত্ব একসাথে বসবেন । পাকিস্তানের পার্লামেন্টেরও এক যৌথ অধিবেশন ডাকা হয়েছে।"

মি. হারুণ বলেন, পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর প্রধান বলেছেন, ভারত সীমান্তের পরিস্থিতির ওপর তীক্ষ্ম নজর রাখা হচ্ছে, এবং কোন রকমের অনুপ্রবেশ হলে তার জবাব দেবার জন্য তারা তৈরি আছেন।

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption কাশ্মীরের ভারত-নিয়ন্ত্রিত অংশে সেনা ফাঁড়ি

হারুন রশীদ বলছিলেন, পাকিস্তানের সামরিক ও রাজনৈতিক কর্তৃপক্ষ এখনো পাকিস্তানের হাতে এ পরিস্থিতির জবাব দেবার মতো কি বিকল্পগুলো আছে তা বিবেচনা করে দেখছে।

তবে আশু পদক্ষেপ কি নেয়া হবে তা দেখতে আরো কিছুটা সময় অপেক্ষা করতে হবে বলেই তিনি মনে করেন।

অন্যদিকে পাকিস্তানের হাতে একজন ভারতীয় সৈন্য আটক হয়েছে বলে এক খবরে জানা গেছে। তবে পাকিস্তানের সরকার বা সামরিক বাহিনীর দিক থেকে এ ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কিছুই বলা হয় নি, বলছেন হারুন রশীদ।

কিন্তু জাতিসংঘে পাকিস্তানের দূত মালিহা লোদী একটি আরব টিভি চ্যানেলকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, পাকিস্তানের হেফাজতে একজন ভারতীয় সৈন্য আছে।

ভারতের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সৈন্যটির মুক্তির জন্য পাকিস্তানের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে।

ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে উত্তেজনা বেড়ে যাবার ফলে সংঘাতের আশংকায় বিশেষ করে পাঞ্জাব অঞ্চলে সীমান্তের দু'দিকেই গ্রামবাসীরা বাড়িঘর ছেড়ে নিরাপদ জায়গায় চলে যাচ্ছে।

সম্পর্কিত বিষয়