কাশ্মীর উত্তেজনায় পাকিস্তানে বন্ধ ভারতীয় সিনেমা

সিনেমার পোস্টারে দীপিকা পাডুকোন ছবির কপিরাইট AP
Image caption দীপিকা পাডুকোনের মতো অনেক বলিউড তারকা পাকিস্তানে জনপ্রিয়

ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে উত্তেজনার প্রভাব পড়েছে দুই দেশের বিনোদন জগতেও। কিছুদিন আগে ভারত থেকে পাকিস্তানি তারকাদের ফেরত পাঠানোর কথা বলেছিল ভারত।

এবার পাকিস্তানে ভারতীয় চলচ্চিত্র প্রদর্শনী বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে দেশটির হল মালিকরা।

এদিকে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ৩ অক্টোবর দেশের প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোকে উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্যে আহ্বান করেছেন।

পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে কোনও ভারতীয় সিনেমা প্রদর্শন করা হবে না, এমন ঘোষণা দিয়েছে সেদেশের সিনেমার পরিবেশকরা ।

আরো পড়ুন:

'ভারত হামলা করলে জবাব দিতে তৈরি' পাকিস্তান

পাক-ভারত সংঘাত: ভয়ে গ্রাম ছাড়ছেন সীমান্তবাসীরা

এমন সিদ্ধান্তে ভারতীয় সিনেমা প্রদর্শন বন্ধ হয়েছে দেশটির লাহোর করাচী ও ইসলামাবাদের সিনেমা হলগুলোতে।

দুই দেশের সীমান্তের উত্তেজনা এভাবেই পৌঁছে গেছে বিনোদন ও সংস্কৃতি জগতে।

তবে বিবিসির সংবাদদাতারা বলছেন, এবারই প্রথম নয়, দুই দেশের সম্পর্কের ওঠানামার প্রভাব এর আগেও শিল্প-সংস্কৃতি ক্ষেত্রে পড়েছে।

ছবির কপিরাইট EPA
Image caption সংঘাতের আশংকায় পাকিস্তানের কাশ্মীর সীমান্ত এলাকা থেকে স্থানীয় বাসিন্দাদের সরিয়ে নিচ্ছে ভারত

চির বৈরিতা থাকলেও পাকিস্তানে ভারতীয় সিনেমা খুবই জনপ্রিয়। তারপরেও সাম্প্রতিক সামরিক টানাপড়েনে পাকিস্তানের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি এবং পরিবেশকরা সিদ্ধান্ত নিয়েছে অন্তত দুই সপ্তাহ বন্ধ রাখা হবে বলিউডের সিনেমা প্রদর্শন। যতদিন দুই দেশের সম্পর্ক স্বাভাবিক না হচ্ছে সময়সীমা ততদিন পর্যন্তও দীর্ঘ হতে পারে।

এতে ব্যবসায়িক ক্ষতিও মেনে নিতে রাজি দেশটির চলচ্চিত্র বিষয়ক সংস্থাগুলি।

এর একদিন আগে ভারতীয় নির্মাতাদের একটি সংগঠন জানিয়েছিল যে তারা পাকিস্তানী কোনও অভিনেতাকে বলিউডের সিনেমাতে সুযোগ দেবে না। তারও আগে একজন চরমপন্থি রাজনীতিবিদ পাকিস্তানী অভিনেতাদের দেশে ফেরত পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছিল।

এদিকে, নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে পাকিস্তান শাসিত কাশ্মীরে ভারতীয় সেনাবাহিনীর অভিযানের পর দুই দেশেরই সীমান্তের অনেক জায়গায় সম্ভাব্য হামলার আশঙ্কায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে গ্রামবাসীদের সরিয়ে নেয়া হচ্ছে।