রাঙামাটিতে কাপ্তাই হ্রদের পারে বাড়ি ধসে হত ৩, খোঁজ চলছে আরো দুজনের

ছবির কপিরাইট গেটি ইমেজেস
Image caption কাপ্তাইয়ের কোল ঘেঁষে গড়ে উঠেছে অনেক বাড়িঘর

বাংলাদেশের পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে কাপ্তাই হ্রদের পাড়ে একটি বাড়ি ধসে পড়ার পর, বাড়িটির ভেতর থেকে তিনজনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

আরো দু'জন মানুষ এখনো ধসে পড়া বাড়িটির ভেতরে আটকে রয়েছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, তাদের উদ্ধারে তৎপরতা চালাচ্ছে দমকল, সেনা ও নৌবাহিনী।

ধসে পড়া বাড়িটি রাঙ্গামাটি শহরের রিজার্ভ বাজার এলাকায় কাপ্তাই হ্রদের পাড় ঘেঁষে তৈরি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেল ৫.৩০টায় টিনশেডের দোতলা বাড়িটি যখন হ্রদের পানিতে ধসে পড়ে, সে সময় বাসিন্দাদের বেশিরভাগই বাড়ির বাইরে ছিলেন।

কেবল শিশু ও কিশোর বয়সী কয়েকজন প্রাইভেট পড়ার জন্য রয়ে গিয়েছিলেন। আর তাদের পড়াতে এসেছিলেন একজন গৃহশিক্ষক।

স্থানীয় সংবাদদাতারা জানাচ্ছেন, বাড়িটি ধসে পড়ার পর, উদ্ধার অভিযানের শুরুতেই কর্তৃপক্ষ যে তিন জনের লাশ উদ্ধার করেছে, তাদের একজন গৃহশিক্ষক।

এখনো বাড়িটির ধ্বংস্তুপের ভেতর দু'জন আটকে রয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে।

ছবির কপিরাইট গেটি ইমেজেস
Image caption রাঙামাটি বাজার ঘাট

রাঙ্গামাটির জেলা প্রশাসক মানজারুল মান্নান খান বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, এখন আটকে পড়াদের উদ্ধারাভিযান চলছে।

"ঘটনা শোনার সাথে সাথে দমকল বাহিনী কাজ শুরু করে। ভবনের একটি অংশ ভেঙ্গে ভেতরে ঢুকে তিনজনের লাশ উদ্ধার করে তারা। কিন্তু এখনো দুইজন আটকে আছে। তাদের উদ্ধারে সেনা ও নৌবাহিনী কাজ করছে।"

এছাড়া চট্টগ্রাম থেকে দমকল বাহিনীর একটি বিশেষ ইউনিট উদ্ধার অভিযানে এসে যোগ দিয়েছে বলে মি. খান জানান।

জানা যাচ্ছে, কাপ্তাই হ্রদের পাড় ঘেঁষে গত কয়েক বছর ধরেই অপরিকল্পিতভাবে নানা স্থাপনা গড়ে উঠেছে।

হ্রদের বাঁধে বর্ষার সময় পানি ধরে রাখা হয়। এরপর শুষ্ক মৌসুমে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য পানি ছেড়ে দেওয়া হয়।

এ কারণে এখন পানি বেড়ে হ্রদের পাড়ের মাটি নরম হয়ে যাওয়ায় বাড়িটি হেলে পড়েছে ধারণা করছে কর্তৃপক্ষ।

সম্পর্কিত বিষয়