বার্মি আর্মি আসেনি, লাল-সবুজে পূর্ণ ঢাকার মাঠ

Image caption বাংলাদেশের খেলা দেখতে লন্ডন থেকে এসেছেন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি চনি

হাজারো দর্শকে পরিপূর্ণ ঢাকার মিরপুরের শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়াম। বাইরে অপেক্ষায় আরও হাজারো দর্শক। লাল সবুজ জার্সি আর পতাকার ভিড়ে খুঁজে পাওয়া গেল না ইংল্যান্ড দলের একজন সমর্থককেও।

ইংল্যান্ড দলের যে অফিশিয়াল সমর্থক গোষ্ঠী, সেই বার্মি আর্মি আগেই ঘোষণা করেছিল, তারা নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে বাংলাদেশে যাচ্ছে না। সুতরাং নিজ দলের সমর্থক ছাড়াই ঢাকার মাঠে বাংলাদেশকে মোকাবেলা করতে হচ্ছে ইংল্যান্ডকে।

কেবল এই খেলা দেখার জন্যই লন্ডন থেকে উড়ে এসেছেন ব্রিটিশ-বাংলাদেশী চনি। ব্রিটেন এবং বাংলাদেশের দ্বৈত নাগরিক। কিন্তু খেলায় পুরো সমর্থন তাঁর বাংলাদেশের পক্ষেই। তার সঙ্গে আছেন অস্ট্রেলিয়া থেকে আসা আরেক বাংলাদেশী বন্ধু।

চনি বলেছিলেন, " বাংলাদেশের ক্রিকেট ফ্যান হিসেবে বাংলাদেশ দলকে মাঠে বসে সাপোর্ট করবো । এর চেয়ে বড় পাওয়া আর হতে পারেনা।"

মাঠে ভিড় করা বাংলাদেশ সমর্থকদের প্রত্যাশা বিপুল। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ দল যেরকম দাপটের সঙ্গে বিশ্বসেরা দলগুলোকে মোকাবেলা করেছে, আজকের খেলাতেও সেরকম একটা কিছু দেখতে চান তারা।

বাংলাদেশ সময় দুপুর আড়াইটায় খেলা শুরু হলেও তখনো স্টেডিয়ামে ঢোকার জন্য শত শত দর্শক লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন। অনেকরই পরনে বাংলাদেশ দলের জার্সি, মাথায় বাঁধা বাংলাদেশর পতাকা।

সম্প্রতি দুর্বল আফগানিস্তানের সাথে তিনটি ম্যাচের একটিতে হেরেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ইংল্যান্ড বর্তমান ক্রিকেট বিশ্বে একটি শক্তিশালী দল। তারপরেও জয় নিয়ে দর্শকরা আশাবাদী।

Image caption মাঠে ঢোকার অপেক্ষায় দুই বাংলাদেশ সমর্থক

স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে আসা আফরোজা আক্তার রিমু বলেন, " বাংলাদেশ জিতবে। এটা আমার মনে মধ্যে আশা আছে। হেরে যাবে কথাটা মনের ভেতর কখনো আসেনা।"

ইংল্যান্ডের ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে স্টেডিয়ামে ভেতরে, বাইরে এবং আশপাশে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। স্টেডিয়ামে ঢোকার সময় দর্শকরে ব্যাপক তল্লাশি করা হচ্ছে। স্টেডিয়ামে বাইরে পোশাকধারী নিরাপত্তা বাহিনীর টহল ছিল চোখে পড়ার মতো।

তাছাড়া স্টেডিয়াম অভিমুখের রাস্তাগুলোতে অনেক দূর থেকেই যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল।

Image caption মাঠের বাইরে বিক্রি হচ্ছে বাংলাদেশের পতাকা

গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার পর ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফর নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছিল। কিন্তু অনেক অনিশ্চয়তার পর শেষ পর্যন্ত ইংল্যান্ড ক্রিকটে দল বাংলাদেশে খেলতে আসে। এজন্য বাংলাদেশের দর্শকরা ইংল্যান্ড দলকে ধন্যবাদ জানাচ্ছেন।

স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে আসা দর্শক জিয়াউর রহমান বলছিলেন, " বেশ ভালো নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখলাম। আশা করি কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটবে না।"

বাংলাদেশের দর্শকরা বলছেন গত কয়েক বছরে দেশের মাটিতে বাংলাদেশে দল ভালো পারফর্মেন্স দেখিয়েছে। সেজন্য ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের আশা করা বেশ স্বাভাবিক বলেই মনে করছেন বাংলাদেশের দর্শকরা।

সম্পর্কিত বিষয়