দিল্লিতে ১৬৮ বছরের পুরনো বাড়িতে জীবনযাপন

অনিল পারসাদ দিল্লির বাসিন্দা
Image caption অনিল পারসাদ দিল্লির প্রাচীন বাড়ির বাসিন্দা হয়ে গর্ববোধ করেন, তিনি কখনও পুরনো দিল্লি ছেড়ে যাবেন না।

ভারতের দিল্লিতে প্রতি বছর যে পর্যটকরা ভ্রমণে আসেন তার অন্যতম কারণ হলো শহরটির প্রাণাচঞ্চল্য, রাস্তার খাবারদাবার এবং প্রাচীন সব ভবন দর্শন। পুরনো দিল্লিতে প্রাচীন যেসব ভবন এখনও ভালোভাবে টিকে রয়েছে তারই একটি ঘুরে দেখেছেন অনসুয়া বসু।

প্রাচীন ভবনে থাকতে কেমন লাগে, আর ভবন কিভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করছে ভবন মালিকরা সেটারও অনুসন্ধান করেছেন তিনি।

ভারত যখন মোঘলরা শাসন করতো তখন অনেক প্যালেস এবং বড় বড় বাড়ি গড়ে উঠেছিল দিল্লিতে। কিন্তু সেই তুলনায় খুব কম সংখ্যক বাড়ি এবং প্যালেস এখন পর্যন্ত টিকে আছে।

দিল্লিতে ৫৫৪টি প্রাচীন বাড়ি সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। তবে লালা চুন্নামালের 'হাভেলি' বা প্রাসাদসম বাড়িটি টিকে আছে ব্যক্তি উদ্যোগেই। ভারতীয় সরকারের কোনও সাহায্য ছাড়াই বছরের পর বছর সেই বাড়িটি রক্ষণাবেক্ষণ করে আসছে।

Image caption বাড়ির আঙ্গিনা
Image caption বাড়িটির দেয়ালে আয়না দিয়ে সুসজ্জিত কারুকাজ চোখে পড়ে

এই বাড়িটি তৈরি হয়েছিল ১৮৪৮ সালে।

এখন এ বাড়িটির যারা মালিক তাদেরই একজন অনিল পারসাদ। তিনি বলছিলেন কেন এই প্রাসাদসম বাড়িটি আভিজাত্যের প্রতীক।

"এক একরের উপর তৈরি হয়েছে বাড়িটি। এখানে ১২৮টি ঘর রয়েছে। আরএখানে ৩০টি পরিবার খুব সহজে থাকতে পারে, এমন বন্দোবস্ত এখানে আছে। তবে এখান থেকে এখন অনেক পরিবারই শহরের অন্য এলাকায় চলে গেছে"-বলেন মি: পারসাদ।

তবে বাড়িটি ছেড়ে কখনও যাবেন না বলে মন্তব্য করেন মি: পারসাদ।

Image caption দিল্লির ব্যস্ত এলাকায় অবস্থিত এ বাড়িটির ভেতরের পরিবেশ দেখলেই প্রাণ জুড়িয়ে যায়