প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রশাসনে কারা থাকছেন?

ট্রাম্প তাঁর প্রশাসনে কাকে কোন পদে রাখছেন তা নিয়ে শুরু হয়েছে নানা আলোচনা ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption ট্রাম্প তাঁর প্রশাসনে কাকে কোন পদে রাখছেন তা নিয়ে শুরু হয়েছে নানা আলোচনা

যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর প্রশাসনে কাকে কোন পদে রাখছেন তা নিয়ে শুরু হয়েছে নানা আলোচনা, চলছে জল্পনা-কল্পনা।

মি: ট্রাম্পের প্রচারণা দলের কয়েকজন উপদেষ্টা জানিয়েছেন, নতুন কেবিনেট ও হোয়াইট হাউসের গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোর জন্য পছন্দের প্রার্থী বাছাই শুরু হয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে নির্বাচনী প্রচারণার পুরো সময় ধরে বিশ্বস্ত ও ঘনিষ্ঠ ছিলেন এমন ব্যক্তিদের প্রশাসন ও হোয়াইট হাউজের শীর্ষপদে আনছেন নতুন প্রেসিডেন্ট।

নিউট গিংরিচ

ছবির কপিরাইট AP
Image caption নিউট গিংরিচ

যুক্তরাষ্ট্রের নিম্নকক্ষ হাউজ অব রিপ্রেজেনটেটিভের সাবেক স্পিকার নিউট গিংরিচকে চিফ অব স্টাফ পদে দেখা যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।।

১৯৯৪ সালে তিনি হাউজ অব রিপ্রেজেনটেটিভের স্পিকার ছিলেন।

নৈতিকতা লঙ্ঘনের কারণে ৭৩ বছর বয়সী জর্জিয়ার এই আইনপ্রণেতা স্পিকারের পদ ছেড়ে দেন।

২০১১ সালে রিপাবলিকান দলের হয়ে প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীর লড়াইয়ে হেরে যান মি: গিংরিচ।

ছবির কপিরাইট AP
Image caption রুডি জুলিয়ানি

রুডি জুলিয়ানি

ডোনাল্ড ট্রাম্পের একনিষ্ঠ প্রতিনিধিদের একজন রুডি জুলিয়ানি । তাঁকে আমেরিকার অ্যাটর্নি জেনারেলের পদে দেখা যেতে পারে।

অথবা তিনি হতে পারেন প্রতিরক্ষা গোয়েন্দা সংস্থা কিংবা সিআইএ-র পরিচালক। তাঁকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বা হোমল্যান্ড সিকিউরিটি সেক্রেটারি হিসেবেও দেখা যেতে পারে।

মি: জুলিয়ানি, নিউ ইয়র্কের সাবেক আইনজীবী ২০০৮ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নমিনেশন পেতে ব্যর্থ হন।

আরও পড়ুন:

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প: কারা তাঁকে ভয় পাচ্ছেন?

'ট্রাম্পকে দেশ ছাড়া করো' স্লোগানে বিক্ষোভ কি ভীতি থেকে?

বেশি ভোট পেয়েছেন হিলারি, কিন্তু নির্বাচিত হলেন ট্রাম্প

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption রিয়েন্স প্রাইবাস

রিয়েন্স প্রাইবাস

৪৪ বছর বয়সী রিয়েন্স প্রাইবাসকে হোয়াইট হাউজে চিফ অব স্টাফের পদে দেখা যেতে পারে।

রিপাবলিকান ন্যাশনাল কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে তিনি রিপাবলিকান নমিনি ও পার্টির কার্যকলাপের মধ্যে সমন্বয় তৈরি করেন।

হাউজ স্পিকার পল রায়ানের ঘনিষ্ঠ মি: প্রাইবাস।

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption ক্রিস ক্রিস্টি

ক্রিস ক্রিস্টি

নিউ জার্সির গভর্নর ক্রিস ক্রিস্টিকে কমার্স সেক্রেটারির দায়িত্ব দেয়া হতে পারে।

৫৪ বছর বয়সী মি: ক্রিস্টি নির্বাচনী প্রচারণার শুরুতেই ট্রাম্পকে এনডোর্স করেছিলেন।

জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক মুখপাত্র রিচার্ড গ্রেনেল হতে পারেন জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত।

পছন্দের এসব ব্যক্তিদের বাইরেও ট্রাম্প তার প্রতিষ্ঠান কিংবা ঘনিষ্ঠ অন্যদের নিয়োগ দিয়ে চমকে দিতে পারেন বলে গুঞ্জন আছে। তবে শেষ পর্যন্ত কার ভাগ্যে কোন পদ জোটে তার জন্য আরও কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হবে।