আবারো সমাবেশে ব্যর্থ বিএনপি, বিক্ষোভের ঘোষণা

Image caption ঢাকার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়

ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের আবেদন করে দ্বিতীয়বারের মতো অনুমতি না পাওয়ায় ১৪ই নভেম্বর (সোমবার) বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি।

১৩ই নভেম্বর (রোববার) সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে আবেদন করেছিল বিএনপি।

রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন- "আইনের মধ্যে থেকে জনসভা করার বিষয়েও অনুমতি দেয়া হচ্ছে না। অর্থাৎ আমার সাংবিধানিক অধিকারকে লঙ্ঘন করা হচ্ছে"।

৭ই নভেম্বরে বিএনপি তাদের 'বিপ্লব ও সংহতি দিবস' পালন উপলক্ষে এর আগেও ৭ বা ৮ই নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছিল। তবে একইদিনে একাধিক সংগঠন সমাবেশের আবেদন করেছে জানিয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ তা নাকচ করে দেয়।

অনুমতি না পেয়ে ৮ই নভেম্বর নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশের আবেদন করলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন জানায় যে, রাস্তায় সমাবেশ করতে হলে তাদের অনুমতি লাগবে।

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption বিএনপি মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

যদিও ৮ই নভেম্বরেই পুলিশ বিএনপিকে ২৭ টি শর্তে ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউটে একটি সমাবেশের অনুমতি দেয়। তবে বিএনপি সেটি প্রত্যাখ্যান করে।

অনুমতি পেতে দুই দফায় ব্যর্থ হয়ে ১৩ ই নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের জন্য পুনরায় আবেদন করেছিল বিএনপি।

এবারো অনুমতি না পেয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করল বিএনপি।

সোমবার ঢাকা মহানগরের থানাগুলোতে এবং সারাদেশে মহানগর ও জেলা সদরগুলোতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করার ঘোষণা দেন বিএনপি মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপিকে কেন সমাবেশের অনুমতি দেয়া হলো না জানতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সাথে যোগাযোগ করা হলে বিষয়টি নিয়ে কেউ মন্তব্য করেননি।

বিএনপির আবেদনের জবাবে কোন চিঠিও তাদের দেয়া হয়নি বলে জানা গেছে।