পর্যটকদের জন্য আবার খুলছে স্বর্ণ মন্দির

ছবির কপিরাইট সুপ্রীতি ধর
Image caption মন্দিরের পবিত্রতা রক্ষায় গত ফেব্রুয়ারিতে পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল কর্তৃপক্ষ

প্রায় নয় মাস পর বাংলাদেশের বান্দরবানের 'বুদ্ধ ধাতু জাদি' বা স্বর্ণ মন্দির অবশেষে পর্যটকদের জন্য আবার খুলে দেয়া হয়েছে।

১৬ই নভেম্বর থেকে সেখানে আবার পর্যটকরা প্রবেশ করতে পারবেন।

বান্দরবান জেলায় অবস্থিত অন্যতম একটি দর্শনীয় স্থান 'বুদ্ধ ধাতু জাদি' যেটি মূলত স্বর্ণ মন্দির নামেই পরিচিত, মন্দিরের পবিত্রতা রক্ষায় গত ফেব্রুয়ারিতে সেটিতে পর্যটকদেরআরোপ করে মন্দির কর্তৃপক্ষ।

গত ২০শে ফেব্রুয়ারি থেকে সেই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হয়।

তবে বুধবার থেকে নিষেধাজ্ঞাটি তুলে নেয়া হচ্ছে।

এখন থেকে সেখানে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারির মধ্যে পর্যটকরা প্রবেশ করতে পারবেন। প্রতিদিন সকাল ১০ থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সেখানে পর্যটকরা প্রবেশের সুযোগ পাবেন। মাঝে দুপুর ১২টা থেকে ২টা পযর্ন্ত প্রার্থনার জন্য বন্ধ থাকবে।

বান্দরবানে পর্যটকরা প্রিয় দর্শনীয় স্থানগুলোর একটি এই মন্দিরটি।

বান্দরবানের পুলিশ জানিয়েছে, মন্দিরটিতে পুলিশের নিয়মিত পাহারা থাকবে। সেখানে প্রবেশ করতে হলে পর্যটকদের মেটাল ডিটেক্টরের মাধ্যমে তল্লাশি করে ঢুকতে হবে।

ছবির কপিরাইট সুপ্রীতি ধর
Image caption বান্দরবানের পর্যটকদের প্রিয় স্থানগুলোর একটি 'বুদ্ধ ধাতু জাদি' যা স্বর্ণ মন্দির নামেই বেশি পরিচিত

নিষেধাজ্ঞার সময় মন্দির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা পর্যটকরা বৌদ্ধ মন্দিরের পবিত্রতা নষ্ট করছে, বিভিন্নভাবে ভক্তদের হয়রানিও করেছে।

স্বর্ণ মন্দিরের প্রধান পুরোহিত উপ ঞ ঞা জোত মহাথেরের সেক্রেটারি বাচ মঙ জানিয়েছেন, "পর্যটকেরা মন্দিরের বিভিন্ন মূর্তি স্পর্শ করে এমনকি পূজার আসনে বসে মন্দিরের পবিত্রতা নষ্ট করছে"।

"মন্দিরের পূজার দ্রব্য ফেলে দেওয়ার মতো ঘটনা ঘটিয়েছে। অনেক পর্যটক জুতা নিয়েও মন্দিরে প্রবেশ করে। তাদের বাধা দিয়ে বাকবিতণ্ডা তৈরি হয়েছে, মন্দিরের কর্মকর্তারা হুমকি-ধামকির মুখেও পড়েছেন"-বলেন মি: মঙ।

অন্যদিকে স্থানীয় বাসিন্দদের দাবি ছিলো, মন্দিরে প্রবেশে অনির্দিষ্টকালের নিষেধাজ্ঞা আরোপের এ সিদ্ধান্তের কারণে জেলার পর্যটন ব্যবসায় ক্ষতি হতে পারে।