বাংলাদেশে কমতে যাচ্ছে জ্বালানি তেলের দাম

Image caption বাংলাদেশে জ্বালানী তেলের দাম কমানোর বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছেন দেশটির অর্থমন্ত্রী

জ্বালানী তেলের দাম কমানোর বিষয়ে সরকার চিন্তা করছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সরকারের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকার সচিবালয়ে আইএমএফের প্রতিনিধিদের সঙ্গে একটি বৈঠকের পর বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ''জ্বালানি তেলের দাম কিছুটা কমানো হবে। কো-অর্ডিনেশন কাউন্সিলের সভায় তেলের দাম কমানোর বিষয়ে কথা হয়েছে। আমরা মনে করছি, দাম একটু কমালে অর্থনীতি আরো শক্তিশালী হবে।''

এখন তারা কাগজপত্র তৈরি করে জ্বালানি মন্ত্রণালয়ে পাঠাবেন বলে তিনি জানান।

জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনার এবং প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের পরই এ বিষয়টি চূড়ান্ত হবে বলে মি. মুহিত জানান।

বাংলাদেশের স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, সামনের মাস থেকেই জ্বালানি তেলের দাম কমানো হতে পারে।

বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম কম থাকায় অনেকদিন ধরেই তেলের দাম কমানেরা দাবি করছিল বিভিন্ন মহল।

বাংলাদেশে সর্বশেষ জ্বালানি তেলের দাম কমানো হয়েছিল এ বছরের ২৪শে এপ্রিল।

তখন ডিজেল ও কেরোসিনের দাম প্রতি লিটারে ৩ টাকা আর অকটেন পেট্রোলের দাম ১০ টাকা কমানো হয়।

আর আগে ৩১ মার্চ ফার্নেস অয়েলের দাম প্রতি লিটারে ৬০ টাকা থেকে কমিয়ে ৪২টাকা করা হয়।