টেকনাফ থেকে ২০ কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার

ছবির কপিরাইট MUNIR UZ ZAMAN
Image caption নাফ নদীতে বিজিবি পাহারা

বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলীয় টেকনাফ থেকে রোববার ২০ কোটি টাকা মূল্যের প্রায় সাত লাখ পিস ইয়াবা বড়ি আটক করেছে বাংলাদেশের সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিজিবি।

কর্মকর্তারা বলছেন, এটি বিজিবির আটক করা এ পর্যন্ত সবচাইতে বড় ইয়াবার চালান।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা বলছেন, ইয়াবাই এখন বাংলাদেশের সবচাইতে বেশি ব্যবহৃত মাদকদ্রব্যে পরিণত হয়েছে।

বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তবর্তী নাফ নদীতে একটি নৌকা থেকে খুব ভোরে চালানটি আটক করে সীমান্ত রক্ষী বাহিনি বিজিবি।

ছবির কপিরাইট Google
Image caption বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে দিয়ে বয়ে গেছে নাফ নদী

টেকনাফে বিজিবি ব্যাটালিয়ান দুই এর মেজর আবু রাসেল সিদ্দিকি বলছেন, এই এলাকাটি ইয়াবা চালানের একটি বড় ট্রানজিট হয়ে উঠেছে।

তিনি বলেন, মুলত মিয়ানমার হয়েই বাংলাদেশে ইয়াবার চালান বেশি আসে। মি. সিদ্দিকি বলছেন, ছোট চালানগুলোই বরং তাদের জন্য ধরা কঠিন হয়ে পড়ে।

বাংলাদেশে অক্টোবর পর্যন্ত বিজিবি প্রায় ১৮০ কোটি টাকা মূল্যের ইয়াবা আটক করেছে।

ছবির কপিরাইট Google
Image caption বাংলাদেশ ইয়াবার ব্যবহারকারীর সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের তথ্যমতে, এ বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাংলদেশের সকল বাহিনী মিলে দুই কোটির বেশি পিস ইয়াবা বড়ি আটক করেছে।

কিন্তু তারপরও দেশের সর্বস্তরে এটি ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানাচ্ছেন অধিদপ্তরের গোয়েন্দা ও অপারেশনস বিভাগের পরিচালক সৈয়দ তৌফিক উদ্দিন আহমেদ।

তিনি বলছেন, ইয়াবাই এখন বাংলাদেশে সবচাইতে বেশি ব্যবহৃত মাদকদ্রব্য। খুব ছোট আকারের বড়ি হওয়াতে এর বহন সহজ - আর তাই এটি ধরাও কঠিন।

মাদকাশক্তি নিরাময় করেন এমন চিকিৎসকরা বলছেন, তাদের কাছে ইয়াবা আসক্তরাই ইদানিং সবচাইতে বেশি সংখ্যায় আসছে।

সম্পর্কিত বিষয়