সাড়ে তিন বছরেরও বেশি কারাভোগের পর জামিনে মুক্তি পেলেন মাহমুদুর রহমান

ছবির কপিরাইট ফোকাস বাংলা
Image caption মাহমুদুর রহমানকে আটক করে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ (ফাইল ফটো)

দৈনিক আমার দেশের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান প্রায় সাড়ে তিন বছর কারাভোগের পর আজ জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।

দুপুরে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে মুক্তি লাভের পর তার সমর্থকেরা তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

দৈনিক আমার দেশের একজন সাংবাদিক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ মিস্টার রহমানের মুক্তির খবর নিশ্চিত করে বলেছেন তার বিরুদ্ধে ৭০টিরও বেশি মামলা রয়েছে।

২০১৩ সালের ১১ই এপ্রিল মিস্টার রহমানকে ঢাকার কারওয়ান বাজারে দৈনিক আমার দেশ কার্যালয় থেকে আটক করেছিলো আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের একজন বিচারপতির কথোপকথন পত্রিকায় ফাঁস করার অভিযোগ ওঠার পর মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে এবং রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে দু'টি মামলা ছিল বলে পুলিশ আটকের পর জানিয়েছিলো ।

তবে এর আগে ২০১০ সালের জুন মাসেও আটক হয়েছিলেন মিস্টার রহমান।

Image caption আদালত প্রাঙ্গণে মাহমুদুর রহমান (ফাইল ফটো)

আদালত অবমাননার একটি মামলায় সে বছর ১৯শে অগাস্ট মাহমুদুর রহমানকে ছয় মাসের কারাদণ্ড এবং ১ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরো ১ মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেয় সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। সবমিলিয়ে নয়মাস পর কারাগার থেকে ছাড়া পান মি. রহমান।

বিএনপি জামায়াত জোট সরকার ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসার পর মাহমুদুর রহমানকে বিনিয়োগ বোর্ডের নির্বাহী চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেয়া হয়। ২০০৫ সালে তিনি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার জ্বালানি বিষয়ক উপদেষ্টার দায়িত্ব নেন।

২০০৮ সালে তিনি বিএনপি নেতা মোসাদ্দেক আলীর মালিকানাধীন আমার দেশ পত্রিকার ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব নেন। সে সময় থেকেই তিনি পত্রিকাটির ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।