হোয়াইট হাউজে মেলানিয়া ট্রাম্পের না যাওয়া কি ভালো অভিভাবকের লক্ষণ?

ডোনাল্ড ট্রাম্প ও মেলানিয়া ট্রাম্পের সঙ্গে তাঁদের ছেলে ব্যারন ট্রাম্প ছবির কপিরাইট AFP
Image caption ডোনাল্ড ট্রাম্প ও মেলানিয়া ট্রাম্পের সঙ্গে তাঁদের ছেলে ব্যারন ট্রাম্প

ডোনাল্ড ট্রাম্প জানুয়ারিতে দায়িত্ব গ্রহণের পর হোয়াইট হাউজে থাকা শুরু করলেও আপাতত সেখানে থাকছেন না স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্প ও ছেলে ব্যারন ট্রাম্প।

মেলানিয়া ট্রাম্প বলেছেন, একমাত্র সন্তান ব্যারন ট্রাম্পের পড়ালেখার কথা ভেবে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

কারণ নিউইয়র্কে অবস্থিত ট্রাম্প টাওয়ার কাছেই অবস্থিত ব্যারনের স্কুল। তাই মেলানিয়া এখানেই থাকতে চান। তবে সেমিস্টার শেষ হলে ছেলেসহ হোয়াইট হাউজে যাবেন তিনি।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণার সময় ব্যারনের পড়াশুনার বেশ ক্ষতি হয়েছে, তাই আপাতত ছেলের পড়া নিয়েই ব্যস্ত থাকতে চান তিনি। কিন্তু এর মধ্যে প্রয়োজন পড়লে মাঝে মধ্যে হোয়াইট হাউজে যাবেন মেলানিয়া, এমনটাই জানিয়েছেন তিনি।

আর এই খবরে সোশ্যাল মিডিয়ায় চলছে আলোচনা -সমালোচনা। অনেকে এ সিদ্ধান্তকে ঠিকভাবে নিতে পারেননি, আবার অনেক ব্যঙ্গও করছেন।

পামেলা বেনবো নামে একজন টুইটারে লিখেছেন "হোয়াইট হাউজে ফার্স্ট ফ্যামিলি থাকবে এটা আমাদের দেশের একটা প্রতীক এবং বিশ্বের কাছেও তাই। মেলানিয়া ট্রাম্পের এমন সিদ্ধান্ত আতঙ্কের বিষয় আমার কাছে"।

অনেকে মজা করে লিখেছেন মিসেস ট্রাম্পের ইন্টেরিয়র ডিজাইন নিয়ে যে পছন্দ আছে সে কারণে তিনি হোয়াইট হাউজে যেতে চাইছেন না।

আবার অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন ট্রাম্পের বিয়ের সম্পর্ক এখন কোনদিকে মোড় নিচ্ছে তা প্রকাশ পাচ্ছে মেলানিয়ার হোয়াইট হাউজে না যাওয়ার সিদ্ধান্তে।

কিন্তু মেলানিয়ার সমর্থনেও অনেকে টুইট করেছেন।

"ভালো সিদ্ধান্ত। শিশু ব্যারনের জন্য এমন সিদ্ধান্ত দায়িত্বশীল অভিভাবকের প্রমাণ দেয়"-লিখেছেন একজন।

আরও পড়ুন:

স্পেনে 'বারান্দায় লাফ দেয়া'র বিষয়ে ব্রিটিশদের সতর্ক করলো কর্তৃপক্ষ

কেন ইতিহাস মনে রাখবে ফিদেল কাস্ত্রোকে

সম্পর্কিত বিষয়