প্রয়াত হলেন ভারতের তামিলনাডু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জায়ারাম জয়াললিতা

বিপ্লবী নেত্রী নামে পরিচিত জয়াললিতা ছবির কপিরাইট এএফপি
Image caption বিপ্লবী নেত্রী নামে পরিচিত জয়াললিতা

ভারতের প্রধান রাজনীতিবিদদের অন্যতম ও তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী জায়ারাম জয়াললিতা সোমবার চেন্নাইয়ের এক হাসপাতালে প্রয়াত হয়েছেন।

তার বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর।

রবিবার সন্ধ্যায় হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার পর তিনি সেখানে ভর্তি হয়েছিলেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আগাগোড়াই বলে আসছিলেন তার অবস্থা অত্যন্ত সংকটজনক, অবশেষে সোমবার রাতে তার মৃত্যুসংবাদ ঘোষণা করা হয়।

জয়াললিতার অসুস্থতার খবর ছড়িয়ে পড়তেই হাজার হাজার মানুষ হাসপাতালের সামনে জড়ো হতে শুরু করেছিলেন।

তার মৃত্যুর পর জয়াললিতার শোকার্ত ভক্ত ও অনুরাগীরা পরিস্থিতি অস্থির করে তুলতে পারেন, এই আশঙ্কায় গোটা রাজ্য জুড়ে ও তামিলনাডু-কর্ণাটক সীমান্তেও মোতায়েন করা হয়েছিল প্রচুর নিরাপত্তা বাহিনী।

দক্ষিণ ভারতের রাজ্য তামিলনাডুতে অন্তত পাঁচ দফায় মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

রাজ্যের ইতিহাসে সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনীতিকদের মধ্যে তিনি ছিলেন একজনউ

ছবির কপিরাইট এএফপি
Image caption হাসপাতালের বাইরে শোকার্ত সমর্থকরা।

রাজনীতিতে প্রবেশ করার আগে দক্ষিণী সিনেমার ডাকসাইটে অভিনেত্রী ছিলেন জয়াললিতা, তামিল-তেলেগু-কানাডা ভাষায় বহু হিট ছবি উপহার দিয়েছেন তিনি। বেশ কয়েকটি হিন্দি ছবিতেও অভিনয় করেন তি

তামিল ছবিতে তাঁর এক সময়ের নায়ক, তামিল রাজনীতির আর এক কিংবদন্তী এম জি রামচন্দ্রন তথা এমজিআরের হাত ধরেই তিনি এআইডিএমকে দলে আসেন।

পরে এমজিআরের মৃত্যুর পর তাঁর বিধবা স্ত্রী জানকীর সঙ্গে ক্ষমতার দ্বন্দ্বেও জড়িয়ে পড়েন তিনি।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত জয়াললিতাকেই এআইডিমকে নেতা-কর্মীরা তাদের অবিসংবাদিত নেত্রী হিসেবে মেনে নেয়।

মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে জয়াললিতার বিরুদ্ধে যেমন একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে, তেমনি একজন দক্ষ প্রশাসক হিসেবেও তিনি সুনাম কুড়িয়েছেন।

বিশেষ করে গরিবদের ঘরে ঘরে রঙিন টেলিভিশন, মিক্সার-গ্রাইন্ডার মেশিন দেওয়ার প্রকল্প কিংবা খুব সস্তায় 'আম্মা ক্যান্টিনে' পেট পুরে খাওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়া তাকে রাজ্যে বিপুল জনপ্রিয়তা এনে দিয়েছিল।

পাশাপাশি ২০১৪ সালে কর্ণাটকে বিশেষ কোর্ট তাকে আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তি বানানোর পুরনো একটি দুর্নীতির মামলায় চার বছরের জেলের সাজাও দিয়েছিল।

ভারতে কোনও ক্ষমতাসীন মুখ্যমন্ত্রীর জেলে যাওয়ার ঘটনা ছিল সেই প্রথম।

তবে কিছুদিন জেলে কাটানোর পরই সুপ্রিম কোর্টে তিনি জামিন পেয়ে যান, পরে হাইকোর্টও তাকে ওই মামলায় অব্যাহতি দেয়। ২০১৫র মে মাসে জয়াললিতা আবার ফিরে আসেন মুখ্যমন্ত্রীর পদে।

জয়াললিতার প্রয়াণের মধ্য দিয়ে ভারতীয় রাজনীতির সবচেয়ে বর্ণময় ও প্রভাবশালী চরিত্রদের একজন সোমবার বিদায় নিলেন।

সম্পর্কিত বিষয়