ইংলিশ ফুটবলে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ নিয়ে তোলপাড়
আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

ইংলিশ ফুটবলে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ নিয়ে তোলপাড়

ইংল্যান্ডের বিভিন্ন ক্লাব বা ফুটবল একাডেমিতে শিশু-কিশোর ফুটবলারদের ওপর বিভিন্ন সময় যৌন নিপীড়ন করেছেন কোচ বা অন্যান্য কর্মকর্তারা - বেশ কিছু সাবেক ফুটবলার এমন অভিযোগ তোলার পর তা নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

বিভিন্ন সংবাদপত্র এবং টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিয়ে এই সাবেক ফুটবলাররা বলেছেন, কিশোর বয়েসে একাডেমিতে থাকার সময় তারা নিজেরা দীর্ঘদিন ধরে কোচ বা অন্য প্রশিক্ষকদের হাতে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

সারা ব্রিটেন জুড়ে ছড়িয়ে থাকা ফুটবল ক্লাব ও একাডেমিগুলোতে মূলত অল্পবয়েসী ফুটবলাররা - যারা ১০-১১ বছর বয়েস থেকেই ফুটবল খেলা শিখতে আসে - তারাই এসবের শিকার হয়েছে।

সবশেষ চেলসির একজন সাবেক ফুটবলার গ্যারি জনসন অভিযোগ করেছেন, তিনি ১১ বছর বয়েসে ক্লাবে যোগ দেবার পর সেই ক্লাবের একজন ট্যালেন্ট স্কাউট বা প্রতিভা সনাক্তকারী কর্মকর্তা এডি হিথ তার ওপর বহুবার যৌন নিপীড়ন চালিয়েছিলেন।

পরে সাবেক ম্যানেজারের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ গোপন রাখার বিনিময়ে তাকে ৫০ হাজার পাউন্ড দিয়েছিল ক্লাবটি।

ছবির কপিরাইট HY MONEY
Image caption এডি হিথের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ এনেছেন গ্যারি জনসন

কিন্তু সম্প্রতি ২০ জনেরও বেশি সাবেক ফুটবলার তাদের কোচদের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ আনার পর জনসনও মুখ খুলেছেন।

শুধু তাই নয়, এর পর এ সংক্রান্ত একটি সরকারি সংস্থা টেলিফোনে অভিযোগ জানানোর ব্যবস্থা করলে তাতে এক সপ্তাহে ৮৫০টিরও বেশি অভিযোগ জমা পড়ে।

অভিযোগকারীদের বেশির ভাগই ১০ থেকে ১৫ বছরের কিশোর থাকার সময় তাদের কোচদের হাতে নিপীড়নের শিকার হন।

বোঝাই যাচ্ছে যে এসব ঘটনা ইংলিশ ফুটবলে দশকের পর দশক ধরে ঘটলেও তা গোপন রাখা হয়েছিল।

অনেকেই তখন এসব অত্যাচার সহ্য করেছেন, কিন্তু খেলোয়াড় হিসেবে অবসর নেবারও অনেক পরে তারা এখন পত্রিকা বা টিভিতে মুখ খুলতে শুরু করেছেন।

ইংলিশ ফুটবল এসোসিয়েশন বলেছে এটি তাদের ইতিহাসের অন্যতম বড় সংকট। কিন্তু কিভাবে সবার চোখের আড়ালে এতদিন ধরে এসব চলতে পারলো?

এ নিয়ে এ সপ্তাহের মাঠে ময়দানেতে কথা বলেছেন ফুটবল বিশ্লেষক মিহির বোস।

ছবির কপিরাইট John Parkin
Image caption গ্যারি কারস্টেন

হোয়াটসএ্যাপে গ্যারি কার্স্টেনের ব্যাটিং টিপস

দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক ব্যাটসম্যান এবং পরে ভারতীয় দলের কোচ গ্যারি কারস্টেন ইন্টারনেট মেসেজিং সার্ভিস হোয়াটসএ্যাপের মাধ্যমে ব্যাটিং টিপস দেবার এক সেবা চালু করেছেন। যাকে বলা যেতে পারে দূরশিক্ষণ পদ্ধতিতে ক্রিকেট কোচিং ।

ব্যবস্থাটা হচ্ছে, পৃথিবীর যে কোন জায়গা থেকে তরুণ ব্যাটসম্যানরা তাদের ব্যাটিং-এর ভিডিও ক্লিপ পাঠাবেন, আর গ্যারি কারস্টেন ও তার দল সেটা দেখে তা কিভাবে উন্নত করা যায় - তার পথ বাতলে দেবেন।

মাঠে ময়দানেতে শুনুন গ্যারি কারস্টেনের কথা - যিনি বিবিসির কাছে ব্যাখ্যা করছেন, কি ভাবনা থেকে তাদের এই উদ্যোগ ।

সম্পর্কিত বিষয়