হোয়াইট হাউজ: ইমেইল হ্যাকিং এর বিষয়টি জানতেন পুতিন

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ছবির কপিরাইট গেটি ইমেজেস
Image caption মার্কিন কর্মকর্তারা বলছেন, রুশ প্রেসিডেন্টের অজান্তে এত বড় ঘটনা ঘটতে পারে না

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ঠিক আগে ডেমোক্রেটিক দলের কর্মকর্তাদের ইমেইল অ্যাকাউন্ট হ্যাক হবার বিষয়টি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন জানতেন বলে দাবী করেছে, হোয়াইট হাউজ।

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার একজন ঘনিষ্ঠ উপদেষ্টা বেন রোডস বলেছেন, প্রেসিডেন্ট পুতিন যেভাবে নিজের দেশ ও প্রশাসন পরিচালনা করেন, তাতে তার অজ্ঞাতসারে রুশ হ্যাকাররা এত বড় হ্যাকিং এর ঘটনা ঘটাতে পারে না।

মার্কিন কর্মকর্তারা আরো বলছেন, গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ'র প্রতিবেদনে দেখা গেছে, রুশ হ্যাকাররা ঐ সাইবার অ্যাটাকটি করেছিল প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে প্রভাবিত করার উদ্দেশ্যে।

আর তার নির্দেশনা এসেছিল সর্বোচ্চ কোন পর্যায় থেকে।

কর্মকর্তারা আরো বলছেন, রুশ সরকারের যেকোনো কর্মকাণ্ডের জন্য তো সরকার প্রধান হিসেবে শেষ পর্যন্ত প্রেসিডেন্টই দায়ী হবেন।

ছবির কপিরাইট এএফপি
Image caption ডেমোক্রেটিক দলের নেতা জন পোডেস্টার ইমেইলও ফাঁস করে উইকিলিকস

তবে, রাশিয়া শুরু থেকেই ঐ সাইবার হামলার বিষয়ে দেশটির কোন রকম সম্পৃক্ততার সম্ভাবনা নাকচ করে আসছে।

নতুন করে হোয়াইট হাউজ এই বিতর্কে যোগ দেবার পরে বৃহস্পতিবারও ক্রেমলিন থেকে বিষয়টিকে ভিত্তিহীন বলে নাকচ করে দেয়া হয়েছে।

এমন সম্ভাবনার কথা অবশ্য নাকচ করেছেন ডনাল্ড ট্রাম্পও।

তিনি বলেছেন মিসেস ক্লিনটন নির্বাচনে জিতলে এ নিয়ে কোন তদন্তই চালাত না সরকার।

জুলাইতে উইকিলিকস ২০১৫ সালের জানুয়ারি থেকে এ বছরের মার্চ পর্যন্ত ডেমোক্রেটিক দলের সাতজন শীর্ষ নেতাসহ বিভিন্ন পর্যায়ে চালাচালি হওয়া প্রায় কুড়ি হাজার ইমেইল ও আট হাজার নথি ফাঁস করে দেয়।

ইমেইল গুলোয় বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের প্রাইমারি ও ককাসের আগে বার্নি স্যান্ডার্সের প্রচারণাকে 'ক্ষতিগ্রস্ত করার' অভিযোগ আসে।

এর জের ধরে সেসময় পদত্যাগ করেন যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্রেটিক দলের প্রধান ডেবি ওয়াজেরমেন শুলজ।