পাকিস্তানি জার্সি পরার জেরে ভারতে যুবক গ্রেফতার

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption পাকিস্তানি ক্রিকেট দল

পাকিস্তান ক্রিকেট দলের জার্সি পরার জেরে 'অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের' অভিযোগে আসামের হাইলাকান্দি জেলায় এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রিপন চৌধুরী নামের ওই যুবক পাকিস্তানের সবুজ রঙের জার্সি গায়ে দিয়ে একটি ক্রিকেট ম্যাচে হাজির হয়েছিলেন।

ওই জার্সি দেখে বেশ কিছু মানুষ প্রতিবাদ জানায়।

তারপরেই কয়েকটি হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের সমর্থকরা পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন।

তার বিরুদ্ধে 'অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের' পাশাপাশি 'জনসমক্ষে অভব্যতার' অভিযোগও আনা হয়েছে।

হাইলাকান্দি জেলার পুলিশ সুপারিন্টেডেন্ট প্রণবজ্যোতি গোস্বামী বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, "ওই যুবকের গায়ে পাকিস্তানি জার্সি দেখে খেলা চলাকালীনই কয়েকজন প্রতিবাদ জানায়। তাদের সঙ্গে ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়েন ওই যুবক। দুই তরফেই উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। তারপরেই থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে।"

ভারতীয় জনতা পার্টি হাইলাকান্দি জেলা সভাপতি ক্ষিতীশ রঞ্জন পাল বলছেন, "জেলা ক্রীড়া অ্যাসোসিয়েশনের মাঠে ওই যুবক পাকিস্তানের জার্সি গায়ে দিয়ে হাজির হয়েছিল। ওখানে উপস্থিত অনেকেই এটার প্রতিবাদ করেছিলেন। সাধারণ মানুষও যেমন ছিলেন, তেমন আমাদের পার্টির লোকরাও ছিল। শুধু দলের তরফে নয় - সবাই মিলেই পুলিশের কাছে অভিযোগ জানানো হয়েছিল।"

ছবির কপিরাইট AFP
Image caption শাহীদ আফ্রিদির ভক্ত আসামের ওই যুবক

স্থানীয় সূত্রগুলি জানাচ্ছে কট্টর হিন্দুত্ববাদী সংগঠন হিন্দু জাগরণ মঞ্চের সমর্থকরাই রিপন চৌধুরীর বিরুদ্ধে মূল অভিযোগটি দায়ের করেন, যাতে রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার মতো গুরুতর অভিযোগও ছিল।

"অভিযোগটা খুবই গুরুতর ছিল। তবে গ্রেপ্তার করে ওই যুবককে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদের পরে বোঝা যায় আসলে কী হয়েছিল। পাকিস্তানের জার্সি পরাটা তো কোনও অপরাধ নয়, এই অভিযোগে তো কাউকে গ্রেপ্তার করা যায় না! জেরায় জানা যায় যে তিনি শাহীদ আফ্রিদির ভক্ত, সেজন্যই আফ্রিদির নাম লেখা জার্সি পড়ে মাঠে গিয়েছিলেন। যারা এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন, তাদের সঙ্গে ঝগড়া আর গালিগালাজে জড়িয়ে পড়েন যুবকটি। সেজন্যই গ্রেপ্তার করা হয় ওই যুবককে। তবে তাকে মুচলেকার বিনিময়ে ছেড়েও দেওয়া হয়েছে," বলছিলেন পুলিশ সুপারিন্টেডেন্ট মি. গোস্বামী।

আরো পড়ুন: 'জয় সরকারে ভাল করবেন, রেহানা পার্টিতে ভাল করবেন'

এবছরই পাকিস্তানের এক নাগরিককে সেদেশের পুলিশ গ্রেপ্তার করেছিল কারণ তিনি নিজের বাড়ির ছাদে ভারতের পতাকা উড়িয়ে দিয়েছিলেন। উমর দিরাজ নামের পেশায় দর্জি ওই ব্যক্তি ভারতীয় ক্রিকেটার ভিরাট কোহলির ভক্ত। সেকারণেই ছাদে ভারতের পতাকা উড়িয়েছিলেন বলে পরে জানা যায়। আদালত তাকে দশ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেয়, যদিও এখন তিনি জামিনে মুক্ত রয়েছেন।

কয়েক মাস আগে ভারতের উত্তরপ্রদেশে এক ব্যক্তি বাড়িতে পাকিস্তানের পতাকা টাঙ্গানোর দায়ে গ্রেপ্তার হন।

নিজের বাড়ির কর দেওয়াকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে সমস্যায় পড়েছিলেন তিনি এবং বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে লাগাতার ঘুরেও তার সমাধান করতে পারেন নি।

সেজন্যই উর্ধ্বতন সরকারি আমলাদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য পাকিস্তানের পতাকা টাঙ্গিয়েছিলেন।

সম্পর্কিত বিষয়