'কোন অজুহাত খাড়া করার নেই বাংলাদেশের'

ছবির কপিরাইট MICHAEL BRADLEY
Image caption আউট হয়ে ফিরছেন সাব্বির রহমান

আগে অনেক সময় বলা হতো, নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে তাদের হারানো বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের জন্য খুবই কঠিন - কারণ নিজের দেশে নিউজিল্যান্ড খুব শক্ত প্রতিপক্ষ। তা ছাড়া বিদেশে খেলতে বাংলাদেশ অপেক্ষাকৃত কম অভ্যস্ত।

তবে নিউজিল্যান্ডের কাছে তিনটি ওডিআই এবং তিনটি টি২০-তে হারার পর বাংলাদেশ শিবির থেকে এসব কথা আর বলা হচ্ছে না।

কারণ এবার কন্ডিশন এমনই ছিল যাকে 'প্রায় দেশের মতো' বা 'দেশের চাইতেও ভালো' বলে আখ্যায়িত করেছেন সফরকারীরা।

ছবির কপিরাইট Anthony Au-Yeung
Image caption মাউন্ট মংগানুই: ভালো উইকেট, ভালো কন্ডিশন পেয়েও তার সুবিধে নিতে পারে নি বাংলাদেশ

তাই বোধহয় অধিনায়ক মাশরাফি এই ব্যর্থতার পক্ষে কোন অজুহাত দেন নি। তিনি বলেছেন, অন্তত দুটো ম্যাচ তাদের জেতা উচিত ছিল।

'আসলে বাস্তবতা ছিল - বাংলাদেশে মাঝেমধ্যে ভালো খেলেছে, ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেবার সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারে নি - বরং নিউজিল্যান্ড খেলেছে তাদের চাইতে অনেক ভালো' - মাউন্ট মংগানুই থেকে বিবিসি বাংলাকে বলছিলেন ক্রিকেট সাংবাদিক তারেক মাহমুদ।

বাংলাদেশ দল দায় বীকার করে নিয়েছে, বলছিলেন তিনি।

ছবির কপিরাইট Anthony Au-Yeung
Image caption নিউজিল্যান্ডের স্পিনার সোধী

'টি২০ ম্যাচগুলোতে মুশফিকের অভাবটা খুব বেশি অনুভব করেছেন খেলোয়াড়রা। টপ অর্ডার থেকে বড় রান, বড় ইনিংস আসেনি ।'

"আর সিনিয়র ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা, কন্ডিশন অনুযায়ী বোলিং করতে না পারা, স্পিনারদের ব্যর্থতা, মিসফিল্ডিং - এসব ভুলত্রুটি তো ছিলই। সবকিছু মিলে কোন কিছুই বাংলাদেশের পক্ষে যায় নি।"

"দলের পরাজয়ের কারণ হিসেবে টিম ম্যানেজমেন্ট সিলেক্টররা এসব কারণের কথাই বলছেন। তাদের কথা, খুব ভালো কন্ডিশন, খুব ভালো উইকেট পেয়েও তারা এগুলো কাজে লাগাতে পারেন নি " - বিবিসি বাংলার শাকিল আনোয়ারকে বলেন তারেক মাহমুদ।

আরো পড়ুন: অন্তত চার সপ্তাহ খেলতে পারবেন না মাশরাফি

"তবে তারা এটাও বলছেন গত কয়েক বছর বাংলাদেশ দেশের মাটিতে যেমন খেলেছে তা বিদেশের মাটিতে প্রথম সিরিজেই তেমন করাটা অনেক সময় একটু কঠিন। কিছু বলও ফেস করা তাদের জন্য কঠিন হয়েছে।"

ছবির কপিরাইট Anthony Au-Yeung
Image caption ব্যাটিং বোলিং ফিল্ডিং - সব দিকেই নিউজিল্যান্ড ছিল শ্রেষ্ঠতর

টেস্ট সিরিজে কি হতে যাচ্ছে?

এর পর টেস্ট সিরিজে কি হবে, এ প্রশ্ন এখন সবার মনেই উঠছে।

তারেক মাহমুদ বলছিলেন, টেস্ট ম্যাচের উইকেট আরো কঠিন হবে, পেস-সহায়ক হবে। নতুন বলের বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদেরআো ভালো খেলতে হবে।

"কয়েকজন ব্যাটসম্যানের সাথে আমার কথা হচ্ছিল। তারা বলছিলেন যে এখানকার উইকেটে শুরু থেকেই মেরে খেলার সুযোগ নেই। আগেউইকেটে সেটল হতে হবে। আর এ কাজটা করতে হবে টপ অর্ডারকে।"

"বাংলাদেশ এখনো সেরকম টেস্ট দল হয়ে ওঠেনি। তাদের কাছ থেকে এখনো বিদেশের মাটিতে বা নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে ভালো খেলা আশা করাটা একটু বাড়াবাড়ি হয়ে যায়।"

"ওয়ানডে-টি২০ এমন পারফরম্যান্সের পর এটাকে ভুলে গিয়ে আত্মবিশ্বাস আনা, টেস্টে ভালো খেলা - একটু কঠিন হবে, একটা বড় চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি বাংলাদেশ" - বলছিলেন তারেক মাহমুদ।

বিবিসি বাংলার আরো খবর

সাদ্দামকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিলেন যে সিআইএ কর্মকর্তা

বাগদাদে সবজি বাজারে গাড়ি বোমা, নিহত ১১

নির্মাণের কদিন পরই ভেঙে পড়লো স্কুলের সিঁড়ি

সম্পর্কিত বিষয়