গবেষণা: অতি শৈশবে শোনা ভাষা ভোলে না মানুষ

শিশু ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption বিজ্ঞানীরা এখন বলছেন, শিশুদের জন্মের পর থেকে যত বেশী সম্ভব তাদের সঙ্গে কথা বলতে হবে। (ছবিটি প্রতীকি)

এক গবেষণায় দেখা গেছে, জন্মের পর প্রথম কয়েক মাসে শিশুরা যে ভাষা শোনে সেই ভাষাটা তাদের মস্তিষ্ক থেকে হারায় না।

এমনকি অন্য দেশে চলে গিয়ে জন্ম-ভাষা ভুলে গেলেও সেটা পুনরুদ্ধার করার ক্ষমতা তাদের থাকে।

দক্ষিণ কোরিয়ায় জন্ম নেয়া শিশু, যাদেরকে ডাচ ভাষী দম্পতিরা দত্তক নিয়েছিলেন এবং নেদারল্যান্ডে তারা বেড়ে উঠেছেন তাদের উপর চালানো হয়েছে এই গবেষণা।

সেই শিশুরা বড় হয়ে গেছে এবং দক্ষিণ কোরিয়ার ভাষা ভুলে গেছে।

গবেষণা চলাকালে দেখা গেছে, তারা কোরিয়ান ভাষা প্রত্যাশার চাইতেও দ্রুতগতিতে শিখছে।

এই গবেষণার প্রেক্ষাপটে বিজ্ঞানীরা এখন বলছেন, শিশুদের জন্মের পর থেকে যত বেশী সম্ভব তাদের সঙ্গে কথা বলতে হবে।

সৌলের হ্যানইয়াং ইউনিভার্সিটির ড. জিউন চোই এই গবেষণাটির নেতৃত্ব দেন।

ড. চোই বলেন, এটাই প্রথম গবেষণা, যেখানে দেখানো হল দত্তক নেয়া শিশু অতি শৈশবে শোনা ভাষা ভুলে গেছে বলে মনে করলেও তা দ্রুত পুনরুদ্ধার করতে পারছে।

কোরিয়ান ভাষার ব্যঞ্জনবর্ণ ডাচ ভাষার থেকে একেবারেই আলাদা।

যারা এই গবেষণায় অংশ নেয় তাদের বয়স ত্রিশের কোঠায়।

তাদের দুটি দলে ভাগ করা হয়, একদল শৈশবে কোরিয়ান ভাষার সংস্পর্শে এসেছে আরেক দল কখনো আসেনি।

প্রশিক্ষণের আগে দু দলেরই কোরিয়ান ভাষা সম্পর্কে কোন দক্ষতা ছিল না।

কিন্তু ভাষা প্রশিক্ষণ দেবার পর দেখা যাচ্ছে, যাদেরকে কোরিয়া থেকে দত্তক নেয়া হয়েছিল, তারা কোরিয়ান ভাষা শেখার দক্ষতায় প্রত্যাশাকে অতিক্রম করে গেছে।

সম্পর্কিত বিষয়