যৌতুকের জন্য আত্মহত্যায় প্ররোচিত করলে যাবজ্জীবন

বিয়ের ছবি ছবির কপিরাইট SAM PANTHAKY
Image caption বাংলাদেশে বিয়েতে যৌতুক দাবি করার বিষয়টি আইনে নিষিদ্ধ হলেও, অনেকটা গোপনেই যৌতুকের লেনদেন হয়।

বাংলাদেশ সরকার যৌতুক দাবির অপরাধের দণ্ড বাড়িয়ে যৌতুক নিরোধ আইন সংশোধনের উদ্যোগ নিয়েছে।

যৌতুক চেয়ে আত্মহত্যায় প্ররোচিত করলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ডের বিধান রেখে 'যৌতুক নিরোধ আইন-২০১৭' এর খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিপরিষদের সভায় আজ এই সংশোধনের খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়।

১৯৮০ সালে করা বিদ্যমান যৌতুক নিরোধ আইনে যৌতুক দাবি ও লেনদেনের জন্য শাস্তির বিধান থাকলেও যৌতুক চেয়ে নির্যাতন বা আত্মহত্যার প্ররোচনার জন্য শাস্তির কথা বলা নেই।

তাই প্রস্তাবিত সংশোধনীতে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনকারীর শাস্তির বিধান যুক্ত করা হয়েছে। সংশোধনীতে বলা হয়েছে, যৌতুকের দাবিতে কোনো নারীকে আত্মহত্যায় প্ররোচিত করার সাজা হবে যাবজ্জীন কারাদণ্ড।

এ ছাড়া প্রস্তাবিত খসড়ায় যৌতুকের জন্য নির্যাতনের বিষয়ে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তির বিধান যুক্ত করা হয়েছে।

বিধানে আরও বলা হয়েছে কেউ যদি এই আইনের অপপ্রয়োগ কর তাহলে তাকেও সাজা ভোগ করতে হবে।

আরও পড়ুন:

ভ্যানচালকের চাকরি নিয়ে ফেসবুকে তুমুল আলোচনা

কানাডার কুইবেক সিটি মসজিদে গুলি, নিহত ৬

বাংলাদেশে কেন বেশি জনপ্রিয় ভারতের বাংলা চ্যানেল

ছবির কপিরাইট SPA
Image caption নির্যাতনের একটি প্রতীকী ছবি

সম্পর্কিত বিষয়