যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা স্থগিতের বিরুদ্ধে আপিল

আমেরিকা, যুক্তরাষ্ট্র ছবির কপিরাইট AFP
Image caption প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞার পর আমেরিকাজুগে বিক্ষোভ দেখা যায়।

আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সাতটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের ওপর যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিলেন, তা স্থগিত করে আদালতের নির্দেশনার বিরুদ্ধে আপিল করেছে দেশটির বিচার বিভাগ। তবে আদালতের ওই নির্দেশনার পর এই সাতটি দেশের অনেকেই যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের সুযোগ পেয়েছেন।

সাতটি মুসলিম দেশের মানুষদের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা, মার্কিন এক আদালত, সাময়িকভাবে স্থগিত করার পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সতর্ক করে বলেছেন, এ ধরনে আইনি রুলিং এর কারণে যুক্তরাষ্ট্র খারাপ ও বিপজ্জনক মানুষে ভরে যেতে পারে।

এরপরেই দেশটির বিচার বিভাগ আনুষ্ঠানিকভাবে জানায় যে মিস্টার ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা স্থগিতের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করা হয়েছে।

এর আগে মিস্টার ট্রাম্প টুইটারে জানিয়েছিলেন, তথাকথিত বিচারক আইনের প্রয়োগ স্থগিত করেছে। তিনি তখন এটাও জানিয়ে দেন যে, এই সিদ্ধান্ত বাতিল করা হবে।

ছবির কপিরাইট EPA
Image caption মিস্টার ট্রাম্প টুইটারে জানিয়েছিলেন, তথাকথিত বিচারক আইনের প্রয়োগ স্থগিত করেছে। তিনি তখন এটাও জানিয়ে দেন যে, এই সিদ্ধান্ত বাতিল করা হবে।

যদিও শুক্রবার আদালতের ওই আদেশের পর থেকে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর বলছে, যেসব ভিসা বাতিল করা হয়েছে সেগুলো পুনরায় বিবেচনা করা হবে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশ জারির পর প্রায় ষাট হাজার ভিসা বাতিল করার কথা জানিয়েছিল পররাষ্ট্র দপ্তর।

এছাড়া আদালতের আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে বেশ কয়েকটি এয়ার লাইনস তাদের ফ্লাইটে যাত্রী ওঠানো শুরু করে দেয়। এর আগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এক নির্বাহী আদেশে সিরিয়া, ইরাক, ইরান, লিবিয়া, সোমালিয়া, সুদান ও ইয়েমেন - এই দেশগুলোর লোকদের যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকা নিষিদ্ধ করেন। এর পর সিয়াটলের একজন বিচারক ওই আদেশটি সাময়িকভাবে আটকে দেন।