ইসি-দের 'গোপাল' বলায় ঢাকাতে মানহানির মামলা

ছবির কপিরাইট ফোকাসবাংলা
Image caption বাংলাদেশের এই নবনিযুক্ত নির্বাচন কমিশনারদেরই 'গোপাল' বলা হয়েছে বলে অভিযোগ

বাংলাদেশে নবনিযুক্ত নির্বাচন কমিশনারদের 'গোপাল' বলে সম্বোধন করা হয়েছে, এই অভিযোগে দেশের একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের মালিক ও উপস্থাপকের বিরুদ্ধে ৫০০ কোটি টাকার মানহানির মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ঢাকার মহানগর হাকিম আবু সাঈদের এজলাসে এদিন এই মামলাটি দায়ের করেন ঢাকা বারের আইনজীবী বাহালুল আলম বাহার। মামলার বাদী মি. আলম আদালতে জবানবন্দীও দিয়েছেন।

ওই মামলায় বলা হয়েছে, গত ৬ ফেব্রুয়ারি গভীর রাতে এসএটিভি চ্যানেলের 'লেট এডিশন' নামক একটি অনুষ্ঠানে উপস্থাপক ফয়সাল আল মাহমুদ নবনিযুক্ত নির্বাচন কমিশনারদের সম্পর্কে কটূক্তি করেছেন।

তাকে ওই অনুষ্ঠানে এই নতুন নির্বাচন কমিশনারদের সম্বন্ধে বলতে শোনা গেছে, "আমাদের দর্শকদের প্রশ্ন, আমারও প্রশ্ন হচ্ছে - এই যে গোপালদের খুঁজে বের করা হল, এদের দ্বারা কি জাতির কপাল খুলবে?"

মামলার আরজি-তে উল্লেখ করা হয়েছে, টিভি চ্যানেলের উপস্থাপকের ওই মন্তব্যে দেশের একজন নাগরিক হিসেবে বাদী অত্যন্ত অপমানিত বোধ করেছেন এবং সেই জন্যই এই বিপুল আর্থিক অঙ্কের মানহানির মামলাটি রুজু করা হয়েছে।

মামলাতে এসএটিভি চ্যানেলের মালিক সালাউদ্দিন আহমেদ ও উপস্থাপক ফয়সাল আল মাহমুদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করারও আবেদন জানানো হয়েছে।

ছবির কপিরাইট এসএটিভি
Image caption মানহানির মামলা করা হয়েছে এসএটিভি-র মালিক ও উপস্থাপকের বিরুদ্ধে

বিচারক অবশ্য এই মামলায় এখনও কোনও অদেশ দেননি, এই সংক্রান্ত আদেশ পরে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন।

ইতিমধ্যে অবশ্য 'লেট এডিশন' নামে ওই আলোচনা-অনুষ্ঠানের সেদিন রাতের ভিডিও ক্লিপিংস সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে।

সেখানে উপস্থাপক যখন প্রশ্ন করেন 'এই গোপালদের দ্বারা জাতির কি কপাল খুলবে', তখন অন্যতম আলোচক আওয়ামী লীগ নেতা খালেদ মাহমুদ চৌধুরীকে তীব্র আপত্তি করতে শোনা যায়।

মি চৌধুরী বলেন, "রাষ্ট্রপতি যাদের নির্বাচিত করেছেন ও একটা সাংবিধানিক দায়িত্বে অধিষ্ঠিত করেছেন, একটা টেলিভিশন চ্যানেলের দায়িত্ববান উপস্থাপক হিসেবে আপনি তাদের সম্বন্ধে এমন মন্তব্য করতে পারেন না।"

আলোচক প্যানেলে উপস্থিত বিএনপি নেতা শামসুজ্জামান দুদুকেও বলতে শোনা যায়, "নতুন নির্বাচন কমিশনারদের আপনি মানুন বা না-মানুন, তাদেরকে এখনই এই ধরনের বিশেষণে যুক্ত করার সময় এসেছে বলে মনে করি না।"

সম্পর্কিত বিষয়