শিশু জিহাদের মৃত্যুর ঘটনায় চারজনকে ১০ বছরের কারাদণ্ড

  • ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭
ছবির কপিরাইট Focus Bangla
Image caption শিশু জিহাদকে উদ্ধারে তখন রাতভর চেষ্টা করা হলেও সন্ধান মেলেনি (ফাইল ছবি)

ঢাকার শাহজাহানপুরে ২০১৪ সালে খোলা নলকূপে পড়ে শিশু জিহাদের মৃত্যুর ঘটনায় চারজনকে দশ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ঢাকার একটি আদালত।

দণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে রেলওয়ের দুজন প্রকৌশলী, একজন ইলেক্ট্রিশিয়ান এবং ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মালিক রয়েছেন।

মামলার অন্য দুজন আসামিকে খালাস দিয়েছে আদালত।

দণ্ডপ্রাপ্তদের প্রত্যেককে দুই লাখ টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে আরো দুই বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দেয় আদালত।

ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫-এর বিচারক মো. আখতারুজ্জামান এ রায় দেন।

আসামিদের অবহেলার কারণেই শিশু জিহাদের মৃত্যু হয়েছে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়।

২০১৪ সালের ডিসেম্বর মাসের শীতের এক বিকেলে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার শাহজাহানপুরে খেলতে গিয়ে চার বছর বয়সী শিশু জিহাদ পড়ে যায় পানির পাইপের ভেতর।

এরপর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তাকে উদ্ধারে অভিযান শুরু করে। রাতভর অভিযান চলে ।

গণমাধ্যমকর্মীরা প্রায় পুরোটা সময়ই সেখানে ভিড় করেছিলেন। একসময় ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা "পাইপের ভেতর কারও অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি" জানিয়ে দেন।

এরপর সাধারণ মানুষের চেষ্টায় কয়েকশ' ফুট গভীর পাইপের ভেতর থেকেই বের করে আনা হয় শিশু জিহাদকে। তবে ততক্ষণে তার ছোট্ট দেহ নিষ্প্রাণ হয়ে গেছে।

ঘটনাটি তখন বাংলাদেশে ব্যাপক আলোড়ন তোলে। উদ্ধারকাজের প্রায় পুরো সময়টি বিভিন্ন গণমাধ্যম টেলিভিশনে সরাসরি সেটি প্রচার করে এবং নিয়মিত খবরাখবর দিতে থাকে।

এঘটনায় এর আগে জিহাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট।

সম্পর্কিত বিষয়