পরিবহন ধর্মঘটে ঢাকায় সংঘর্ষের ঘটনায় তিন মামলা, আসামী ১২০০

  • ২ মার্চ ২০১৭
ছবির কপিরাইট FOCUS BANGLA
Image caption পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘটের সময় ঢাকার গাবতলী এলাকা রণক্ষেত্রে রূপ নিয়েছিল

পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘটে ঢাকার গাবতলীতে সংঘর্ষের ঘটনায় তিনটি মামলা হয়েছে, যার আসামী অজ্ঞাতনামা ১০০০ থেকে ১২০০জন।

বুধবার রাতে করা ওই তিনটি মামলায় ৪৬জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এদের মধ্যে কয়েকটি শ্রমিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা রয়েছে। এছাড়া প্রতিটি মামলায় অজ্ঞাতনামা আরো ১০০০ থেকে ১২০০জনকে আসামী করা হয়েছে।

দারুস সালাম থানার কর্মকর্তা নওশের আলী জানান, পুলিশের করা একটি মামলায় সরকারি কাজে বাধা, গাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ এবং যান চলাচলে বাধা তৈরির অভিযোগ আনা হয়েছে। অপর একটি মামলা হয়েছে বিশেষ ক্ষমতা আইনে।

ক্ষতিগ্রস্ত একজন নারী মারধর ও ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগে আরেকটি মামলা করেছেন।

ছবির কপিরাইট FOCUS BANGLA
Image caption পরিবহন ধর্মঘটে ভোগান্তির শিকার হয় সাধারন মানুষ

দু'টো সড়ক দুর্ঘটনার মামলায় সম্প্রতি একজন চালককে যাবতজীবন কারাদণ্ড এবং অপরজনকে মৃত্যুদণ্ড দেবার প্রতিবাদে মঙ্গলবার দেশজুড়ে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়।

মানিকগঞ্জে একটি দুর্ঘটনায় ২০১১ সালে চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও সাংবাদিক মিশুক মুনির নিহত হয়। অপর আরেকটি ঘটনায় সাভারে এক নারী ট্রাক চাপায় নিহত হয়।

বুধবার সকালে ঢাকার গাবতলী এলাকায় পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে শ্রমিকরা। এ সময় পুলিশের রেকার ও সংবাদমাধ্যমের গাড়িসহ একাধিক গাড়ি ভাংচুর করা হয়।

এ সময় ভোগান্তির শিকার হয় সাধারণ মানুষ।

বুধবার দুপুরের পর ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয়া হয়।

সম্পর্কিত বিষয়