পাবনায় চার্চের রক্ষীকে কুপিয়ে আহত, আটক তিন

খ্রিস্টানদের ক্রস ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption বাংলাদেশে খুব অল্প সংখ্যায় খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মানুষ বাস করে

বাংলাদেশের পশ্চিমাঞ্চলীয় পাবনা জেলায় খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের একজন ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

আহত ব্যক্তির নাম গিলবার্ট কস্তা এবং তিনি চাটমোহর উপজেলার একটি গির্জার রক্ষী।

পুলিশ বলছে, ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

চাটমোহর থানার ওসি আহসান হাবিব বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, গিলবার্ট কস্তা বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে দায়িত্ব পালন করার সময় তাঁর ওপর হামলা হয়। এ সময় তাকে চাকু কিংবা ধারালো কোন অস্ত্র দিয়ে হাঁটুর নীচে এবং কপালে আঘাত করা হয়।

তবে মি. কস্তা খুব মারাত্মকভাবে আহত হননি বলে জানান আহসান হাবিব। তিনি বলেন, ৬৫-বছর বয়স্ক ঐ ব্যক্তি এখন হাসপাতালে আছেন এবং সবার সঙ্গে কথা-বার্তা বলছেন।

কুপিয়ে আহত করার এই ঘটনার সঙ্গে কোন জঙ্গি যোগসূত্র নেই বলেই মনে করে চাটমোহরের পুলিশ।

থানার ওসি জানান যে মি. কস্তা তাদের কাছে জবানবন্দী দিয়েছেন এবং তাতে তিনি পূর্ব-শত্রুতাকে ঘটনার জন্যে দায়ী বলে সন্দেহ করছেন।

"তিনি বলেছেন এটা পারিবারিক ব্যাপার হতে পারে, কারণ নিজের গ্রামে তাঁর বিপক্ষ দল রয়েছে। তিনি হামলাকারীদের চিনতেও পেরেছেন," বলছেন আহসান হাবিব।

যে তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, তারা একই গ্রামের মানুষ বলে মি. হাবিব জানান। তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

বাংলাদেশে গত বছর জঙ্গি হামলার ঘটনাগুলোর সময় ধর্মীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষদের ওপর যেসব আক্রমণের ঘটনা ঘটেছিল, তার প্রায় সবগুলোর ক্ষেত্রেই ধারালো অস্ত্রের সাহায্যে কোপানো হয়েছিল।

এর আগে গত জুনে পাবনাতেই হিন্দু সম্প্রদায়ের একজনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছিল।

সম্পর্কিত বিষয়