দুর্নীতির দায়ে ক্ষমতাচ্যুত দক্ষিণ কোরীয় প্রেসিডেন্ট

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption পাক গান হে

দক্ষিণ কোরিয়ার একটি আদালত এক আদেশে সেদেশের প্রেসিডেন্ট পাক গান হে-কে তার পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছে।

এর আগে দক্ষিণ কোরিয়ার পার্লামেন্টে মিজ পাক-কে দুর্নীতির অভিযোগে অভিশংসন করার এক সিদ্ধান্ত ভোটে পাস হয়।

এর পর আটজন বিচারপতির এক সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে পার্লামেন্টের এই অভিশংসনকে সমর্থন দেয়া হলো। আদালত বলেছে, মিজ পাক কার ক্ষমতায় থাকাকালীন পুরো সময় জুড়েই দেশের আইন ও সংবিধান লংঘন করেছেন।

এর পর মিজ পাকের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা শুরু হতে পারে। কারণ তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে যে রাজনৈতিক সুবিধার বিনিময়ে বিভিন্ন কর্পোরেশনের কাছ থেকে অর্থ আদায় করার ক্ষেত্রে মি পাক তার এক বন্ধু চোই সুন-সিলকে সহযোগিতা করেছেন।

দক্ষিণ কোরিয়ার আইন অনুযায়ী এখন থেকে ৬০ দিনের মধ্যে নতুন নির্বাচন হতে হবে।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন: বাংলাদেশে হেফাজত নিয়ে কী অবস্থান সরকারের?

মানবতাবিরোধী ঘটনায় শত শত রোহিঙ্গা মুসলিম হত্যা

পাবনায় চার্চের রক্ষীকে কুপিয়ে আহত, আটক তিন

Image caption মিজ পাকের সমর্থকদের বিক্ষোভ

প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে বলা হয়েছে- মিজ পাক এ ব্যাপারে কোন বিবৃতি দেবেন না, এবং তিনি আজই প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ ছেড়ে যাচ্ছেন না।

আদালতের রুলিংএর পর মিজ পাকের সমর্থকরা বাইরে বিক্ষোভ করে এবং পুলিশের সাথে তাদের সংঘর্ষ হয়। এতে দু'জন নিহত হয়।

অন্যদিকে তার বিরোধীরা এ খবরে উল্লাস করতে থাকে, এবং কয়েদির পোশাক পরা মিজ পাকের একটি কুশপুত্তলিকা পোড়ায়।

ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট বলেছেন, সরকারের এখন উচিত হবে অভ্যন্তরীণ এ সংঘাত যেন না ছড়িয়ে পড়ে - তা নিশ্চিত করা।

সম্পর্কিত বিষয়