ভ্রমণ বিষয়ে ট্রাম্পের নতুন নিষেধাজ্ঞাও আটকে গেল

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ন্যাশভিলে এক সমাবেশে বলেছেন তিনি এ নিয়ে আইনি লড়াই লড়ে যাবেন।

ছয়টি মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের বিষয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সংশোধিত নিষেধাজ্ঞাও আটকে দিয়েছে দেশটির একটি আদালত।

১৬ই মার্চ বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু তার কয়েক ঘণ্টা আগেই হাওয়াই অঙ্গরাজ্যের এক ফেডারেল বিচারক ট্রাম্পের এই নির্বাহী আদেশকে আটকে দিয়েছেন।

স্থানীয় সময় বুধবার রাতে ডিস্ট্রিক্ট জাজ ডেরিক ওয়াটসন এক আদেশে ওই নিষেধাজ্ঞা আটকে দিয়েছেন।

মি: ওয়াটসন বলেছেন সরকার জাতীয় নিরাপত্তার দোহাই দিয়ে যে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে চাইছে তা 'প্রশ্নবিদ্ধ'।

অন্যদিকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বিচারকের এমন আদেশকে 'বিচার বিভাগের অভিনব কৌশল' বলে বর্ণনা করেন।

ভ্রমণ বিষয়ক ট্রাম্পের প্রথম নির্বাহী আদেশে সাতটি দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও, গত ৬ ই মার্চ জারি করা দ্বিতীয় দফার আদেশে ইরাককে বাদ দেয়া হয়।

বাকি ছয়টি দেশ হলো ইরান, সিরিয়া, ইয়েমেন, সুদান, লিবিয়া এবং সোমলিয়া। নতুন আদেশ অনুযায়ী এই দেশগুলোর ওপর ৯০ দিনের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে এবং শরণার্থীদের ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ রাখা হয়েছে ১২০ দিন।

এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে গত সপ্তাহেই মামলা করে হাওয়াই অঙ্গরাজ্য। জানুয়ারিতে ট্রাম্পের প্রথম নির্বাহী আদেশের বিরুদ্ধেও মামলা করেছিল হাওয়াই; নতুন নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আগের মামলাই সংশোধন করে দাখিল করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের যে কয়টি রাজ্য মুসলিমদের প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা বন্ধের চেষ্টা চালাচ্ছে হাওয়াই তার মধ্যে অন্যতম।

ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা সংক্রান্ত দ্বিতীয় নির্বাহী আদেশও আটকে যাবার পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান ডোনাল্ড ট্রাম্প।

বুধবার সন্ধ্যায় টেনেসির ন্যাশভিলে সমর্থকদের নিয়ে এক সমাবেশ শুরুর আগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, হাওয়াইয়ের আদালতের এই আদেশ যুক্তরাষ্ট্রকে 'আরও দুর্বল' করে তুলবে।

এ বিষয়ে আইনি লড়াই চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করে ট্রাম্প বলেছেন তিনি প্রয়োজনে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত যাবেন।

"আমরা অবশ্যই জিতবো" বলেন মি: ট্রাম্প।

ছবির কপিরাইট AFP
Image caption মুসলিমদের প্রবেশ নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়।

সম্পর্কিত বিষয়