ভেঙে দেয়া হলো ভাইরাল হওয়া বাঘের মূর্তি

বাঘের মূর্তি ছবির কপিরাইট TWITTER / @HALLELUHELLYEAH

ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিম জাভার একটি বেস ক্যাম্পের সামনে থাকা একটি বাঘের মূর্তি ভেঙে দিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী।

সম্প্রতি এই মূর্তিটিকে নিয়ে ব্যাপক হাস্যরসের সৃষ্টি হয় ও পরবর্তীতে তা অনলাইনেও ভাইরাল হয়ে যায়।

ইন্দোনেশিয়ার গুরাট গ্রামের সিলিবাঙ্গি মিলিটারি কমান্ডের মাসকট হিসেবে ব্যবহৃত হতো মূর্তিটি।

কিন্তু অনলাইন ব্যবহারকারীরা এটিকে ব্যাপক হাস্যরসের উপকরণ বানিয়ে ফেলে। কারণ সেনাদের অফিসিয়াল লগোতে যে হিংস্র বাঘের ছবি রয়েছে তার পুরোই বিপরীত ছিল এই মূর্তিটি। ব্যবহারকারীদের মতে- মূর্তির এই বাঘটি হিংস্রতার পরিবর্তে একেবারেই নিরীহ দেখাতো।

একজন ফেসবুক ব্যবহারী যেমন লিখেছেন, "আমি জানিনা কেন তারা এই বাঘের মূর্তিটিকে তারা ভেঙে দিয়েছে। কিন্তু প্রতিবার ওটা দেখে আমি অনেক হাসতাম"।

ছবির কপিরাইট SILIWANGI.MIL.ID
Image caption সিলিভাঙ্গি মিলিটারি কমান্ডের লোগোতে বাঘের ছবিটির সঙ্গে ওই বাঘের মূর্তিটির কোন মিলই ছিল না।
ছবির কপিরাইট FACEBOOK / WIBRI JUNIADI
Image caption সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী এমন ছবিও তৈরি করে মজা করেন।

বেশ কয়েক বছর ধরে বাঘের ওই মূর্তিটি বহুবছর সেই জায়গায় ছিল, তবে সম্প্রতি এটাকে নিয়ে ইন্টারনেটে আলোচনার ঝড় উঠে।

স্থানীয় বাসিন্দা ভিনসেন্ট ক্যানড্রা বিবিসিকে জানিয়েছেন, বাঘের মূর্তির ওই ছবিটি দেখে তিনি অনেক হেসেছিলেন এবং টুইটারে শেয়ারও করেছিলেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার পর সেটি জাতীয় মিডিয়ারও নজর কাড়ে।

বাঘটির কার্টুনসদৃশ চেহারা নিয়ে অনেকে এটা নিয়ে মজাও করে, কেউ কেউ ছবির পোস্টারও পর্যন্ত বানিয়ে ফেলে।

"তবে আমি ভাবিনি ওটা এমন ভাইরাল হয়ে পড়বে। মূর্তিটি ভেঙে ফেলার পর খারাপ লাগছে"- বলেন মি: ভিনসেন্ট।

ছবির কপিরাইট TWITTER / @SI_WEL
Image caption বাঘের মূর্তিটি নিয়ে লাইফ অব পাই ছবির পোস্টার তৈরি করেও রসিকতা করেছেন অনেকে