মাঠে ময়দানে
আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

ম্যানচেস্টার সিটিতে পেপ গার্দিওলা কতটা সফল?

ম্যানচেস্টার সিটি ছিটকে গেছে চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে।হয়তো এবারের প্রিমিয়ার লিগও জেতা হবে না তাদের ।

তাদের বিখ্যাত ম্যানেজার পেপ গার্দিওলা স্পেনে বা জার্মানিতে যতটা সাফল্য পেয়েছেন, ইংলিশ ফুটবলে তার প্রথম মওসুমে ততটা পেলেন না কেন?

মওসুমের শুরুতে পেপ গার্দিওলা যখন ম্যানচেস্টার সিটিতে এবং জোসে মুরিনিও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে ম্যানেজার হয়ে এলেন, তখন অনেকেই ধরে নিয়েছিলেন এবার ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপার লড়াই হবে ম্যানচেস্টারে ।

কিন্তু তা হয় নি।

ছবির কপিরাইট Michael Steele
Image caption মোনাকোর কাছে হেরে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে বিদায় নিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি

প্রিমিয়ার লিগে সিটি এখন আছে তিন নম্বরে, পয়েন্ট তালিকায় প্রথমে থাকা চেলসির ১০ পয়েন্ট পেছনে।

জোসে মুরিনিও-র ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডও পাঁচ-ছ'নম্বরে আটকে আছে।

এখন শোনা যাচ্ছে, গার্দিওলা নাকি আগামি মওসুমের আগে অন্তত ১৩ জন খেলোয়াড় বিক্রি করে দিয়ে নতুন খেলোয়্ড় কিনে নতুন করে দলকে গড়ে তুলবেন।

একজন বিশ্লেষক বলেছেন, পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটি প্রত্যাশা পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে।

কিন্তু প্রশ্ন হলো, বার্সেলোনা এবং বায়ার্ন মিউনিখ দিয়ে ইউরোপের ফুটবল কাঁপানোর পর সত্যি কি ইংলিশ ফুটবলে এসে পেপ গাদিওলা ব্যর্থ হযেছেন এটা বলা যায়?

এ নিয়ে এবারের মাঠে ময়দানেতে কথা বলেছেন ফুটবল বিশ্লেষক মিহির বোস।

ছবির কপিরাইট Will Russell
Image caption বাংলাদেশের জাতীয় ফুটবল দলের একটি ম্যাচ

বাংলাদেশে পেশাদার ফুটবলে বিদেশী খেলোয়াড়দের সংখ্যা কমাতে উদ্যোগ নিয়েছে ফুটবল কতৃপক্ষ।

বাংলাদেশের ফুটবলে পেশাদার লিগ চালু হয়েছে বেশ কয়েক বছর আগে, কিন্তু ফিফা র‍্যাংকিং-এর দিকে তাকালেই দেখা যাবে, ফুটবলে মান দিন দিন নেমে যাচ্ছে।

ক্লাবগুলোর বক্তব্য, স্থানীয় খেলোয়াড়দের মধ্যে এমন প্রতিভা বের হচ্ছে না যাদের খেলা দেখতে লোকে পয়সা খরচ করে মাঠে আসবে। তাই মাঠে দর্শক টেনে আনতে বিদেশী খেলোয়াড় দরকার।

কিন্তু অনেকেই বলছেন, ঢাকার লিগে ক্লাবগুলোতে বিদেশী খেলোয়াড়দের জন্য স্থানীয় তরুণ প্রতিভারা প্রথম একাদশে খেলার সুযোগ পাচ্ছেন না , তাই উন্নত মানের দেশীয় খেলোয়াড় বের হয়ে আসছে না।

এখন বাংলাদেশের ফুটবল কর্তৃপক্ষ ঠিক করেছে যে বিদেশী খেলোয়াড়দের এই আধিক্য কমাতে হবে।

নতুন নিয়ম হয়েছে একটি ক্লাব সর্বোচ্চ তিনজন বিদেশী খেলোয়াড় নিবন্ধিত করাতে পারবে, আর প্রথম একাদশে নামানো যাবে সর্বোচ্চ দুজন খেলোয়াড়কে।

এই পরিবর্তনে কতটা কাজ হবে - এ নিয়ে কথা বলেছেন ফুটবল ফেডারেশনের সহসভাপতি সালাম মুর্শেদী এবং জাতীয় দলের সাবেক ম্যানেজার এ কে এম মারুফুল হক।

সম্পর্কিত বিষয়