গঙ্গা এবং যমুনা নদীকে 'জীবন্ত মানুষের' অধিকার দিল আদালত

হিন্দুদের কাছে খুবই পবিত্র নদী হিসেবে বিবেচিত গঙ্গা এবং যমুনা এখন মারাত্মক দূষণের শিকার। ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption হিন্দুদের কাছে খুবই পবিত্র নদী হিসেবে বিবেচিত গঙ্গা এবং যমুনা এখন মারাত্মক দূষণের শিকার।

ভারতের হিন্দুদের কাছে খুবই পবিত্র বলে বিবেচিত গঙ্গা এবং যমুনা নদীকে 'জীবন্ত মানবিক সত্তা' বলে ঘোষণা করেছে একটি আদালত।

হিমালয় রাজ্য উত্তরাখন্ডের হাইকোর্ট তাদের এক রায়ে বলেছে, এই দুই নদীকে যদি 'জীবন্ত মানবিক সত্ত্বা' হিসেবে গণ্য করা হয়, সেটি এই দুটি নদীকে সংরক্ষণ এবং দূষণ থেকে রক্ষায় সহায়ক হবে।

উল্লেখ্য গঙ্গা এবং যমুনা বহুদিন ধরেই মারাত্মক দূষণের শিকার। এই দুটি নদীকেই ভারতের বেশিরভাগ হিন্দু তাদের দেবী হিসেবে বিবেচনা করে।

উত্তরাখন্ডের হাইকোর্ট তাদের রায় দেয়ার ক্ষেত্রে এই বিষয়টিরও উল্লেখ করেছে।

আদালত বলেছে, এই দুটি নদীর ব্যাপারে হিন্দুদের অগাধ বিশ্বাস রয়েছে এবং তারা সম্মিলিতভাবে এই দুই নদীর সঙ্গে এক ধরণের একাত্মতা বোধ করে।

কোন নদীকে 'জীবন্ত মানবিক সত্তা' বলে ঘোষণা এটা প্রথম নয়। এর আগে নিউজিল্যান্ডের হোয়াংগানুই নদীকেও একজন জীবন্ত মানুষের মতো মানবিক অধিকার দেয়া হয়েছিল।

আরও পড়ুন: শেখ মুজিবের 'মূর্তি' সরানোর দাবি তুলেছে কলকাতার মুসলিম ছাত্ররা

উত্তরাখন্ডের হাইকোর্ট বলেছে, ভারতের মোট জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেক মানুষ মনে করেন, নদী তাদের জীবনের অস্তিত্বের সঙ্গে জড়িত। এটি তাদের শারীরিক এবং আধ্যাত্মিকভাবে বেঁচে থাকার ক্ষেত্রে অনুপ্রেরণা যোগায়। কিন্তু শিল্পায়ন আর দ্রুত নগরায়নের ফলে দুটি নদীই এখন মারাত্মকভাবে দূষিত।

উত্তরাখন্ডের দুজন সরকারি কর্মকর্তাকে এই দুটি নদীর আইনগত অভিভাবক নিয়োগ করা হয়েছে।

পরিবেশবাদীরা আশা করছেন আদালতের এই রায়ের পর এখন গঙ্গা ও যমুনাকে দূষণমুক্ত করার বিষয়টি অগ্রাধিকার পাবে।

সম্পর্কিত বিষয়