মুফতি হান্নানসহ তিন আসামীর মৃত্যুদণ্ড স্থগিত চায় হিউম্যান রাইটস ওয়াচ

ছবির কপিরাইট হিউম্যান রাইটস ওয়াচ
Image caption হিউম্যান রাইটস ওয়াচ

বাংলাদেশে সাবেক ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর হামলার ঘটনায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত মুফতি আব্দুল হান্নানসহ তিন আসামীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর প্রক্রিয়া অবিলম্বে বন্ধের আহবান জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা- হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বা এইচআরডব্লিউ ।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এই আন্তর্জাতিক সংস্থার এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে তারা যে কোন দেশে, যে কোন পরিস্থিতিতেই সর্বোচ্চ শাস্তি- মৃত্যুদণ্ডের বিরোধিতা করে।

বিবৃতিতে হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ব্রাড অ্যাডামস বলেন, "বিচার প্রক্রিয়ায় সর্বোচ্চ মান নিশ্চিত করতে হবে বিশেষ করে যখন কারও জীবন ঝুঁকির মুখে পড়ে এবং এখানে কোন সন্দেহ বা ভুলের সুযোগ থাকতে পারেনা"।

২০০৪ সালে সিলেটে হযরত শাহজালাল (র) এর মাজারের বাইরে গ্রেনেড হামলার ঘটনায় মিস্টার চৌধুরী আহত হন এবং নিহত হয় আরও অন্তত তিনজন।

এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় হরকতুল জিহাদ নেতা মুফতি আব্দুল হান্নান সহ মৃত্যুদণ্ড পাওয়া তিন আসামীর রিভিউ আবেদন গত ১৯ শে মার্চ বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালত খারিজ করে দেয়।

পরে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সাংবাদিকদের বলেন রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষার আবেদন না করলে এখন আর মুফতি হান্নান সহ তিন আসামীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে জেল কর্তৃপক্ষের সামনে আর কোন আইনগত বাধা নেই।

ছবির কপিরাইট ফোকাস বাংলা
Image caption মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত মুফতি আব্দুল হান্নান

এখন শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ডের বিরোধিতা করে হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এশিয়া ডিরেক্টর ব্রাড অ্যাডামস সংস্থার এক বিবৃতিতে বলেন অপরাধীদের শাস্তি হতে হবে কিন্তু মৃত্যুদণ্ডের প্রয়োগ করে বাংলাদেশ ভুল পথে অগ্রসর হচ্ছে।

বিবৃতিতে বলা হয় আদালতের ডকুমেন্ট থেকে দেখা যায় স্বীকারোক্তি দেয়ার আগে মুফতি আব্দুল হান্নান ৭৭ দিন এবং অন্য দুই আসামী শরীফ শাহেদুল আলম বিপুল ও দেলোয়ার হোসেন রিপন ৪০ দিন করে পুলিশী হেফাজতে ছিলো।

এসময় কালে তাদের আইনি কোন প্রতিনিধি দেয়া হয়নি এবং স্বীকারোক্তিগুলোও এসময়ই নেয়া হয়েছে।

ছবির কপিরাইট GOV.UK
Image caption সাবেক ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর হামলা হয়েছিলো ২০০৪ সালে সিলেটে

যদিও বাংলাদেশের আদালত পুলিশী হেফাজতে নির্যাতনের অনেক অভিযোগই গ্রহণ করেছে এবং স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো প্রায়শই এ ধরনের ঘটনার প্রতিবাদ করে থাকে।

ব্রাড অ্যাডামস বলেন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ দীর্ঘদিন ধরেই জঙ্গি হামলাগুলোর ঘটনায় দায়ীদের বিচারে সমর্থন দিয়ে আসছে।

"কিন্তু আমরা বারবারই বলে আসছি যে এসব বিচার অবশ্যই আন্তর্জাতিক মানের হতে হবে এবং বাংলাদেশকে মৃত্যুদণ্ড বন্ধ করার আহবান জানাচ্ছি"।

আরও পড়ুন: রিভিউ খারিজ: ফাঁসির দ্বারপ্রান্তে মুফতি হান্নান

আরও পড়ুন: কীভাবে দুর্ধর্ষ জঙ্গি নেতা হয়ে উঠলেন মুফতি হান্নান?

সম্পর্কিত বিষয়