লন্ডনে একাই হামলা চালিয়েছিল খালিদ মাসুদ

বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন নাম ছিলো খালিদ মাসুদের
Image caption বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন নাম ছিলো খালিদ মাসুদের

লন্ডনে পার্লামেন্ট ভবনে সন্ত্রাসী হামলাটি হামলাকারী খালিদ মাসুদ একাই চালিয়েছিল বলে জানাচ্ছে স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড। এছাড়া ওই হামলার পর আরো হামলার পরিকল্পনা ছিল কিনা সে ধরনের কোনো তথ্য বা ইঙ্গিত পায়নি ব্রিটিশ পুলিশ।

বায়ান্ন বছর বয়সী খালিদ মাসুদ বুধবার লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার ব্রিজ দিয়ে গাড়ি চালিয়ে যাওয়ার সময় তার গাড়ি তুলে দেয় পথচারীদের ওপর। ওই হামলায় তিনজন নিহত হয়, আহত হয় অন্তত ৫০ জন মানুষ। এরপর গাড়িটি এসে ধাক্কা দেয় পার্লামেন্ট ভবনের রেলিংয়ে।

এরপর ছুরি হাতে গাড়ি থেকে বেরিয়ে একজন নিরস্ত্র পুলিশ অফিসারকে ছুরিকাঘাতও করে মাসুদ এবং পুলিশের গুলিতে নিহত হয় হামলাকারী।

কিন্তু পুরো ঘটনাটি ঘটে মাত্র ৮২ সেকেন্ডের মধ্যে।

পুলিশ বলছে "আমাদের হয়তো সবাইকে এটাই মেনে নিতে হবে যে, হামলাকারী কেন এ কাজ করেছে তা আমরা কোনো দিন জানতে পারবো না"।

লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের ডেপুটি অ্যাসিস্টেন্ট কমিশনার নেইল বসু বলেছেন "আমরা এখন পর্যন্ত জানি মাসুদ একাই ওই হামলাটি চালিয়েছে।

"তবে এটাও আমাদের জানতে হবে যদি খালিদ মাসুদ একাই হামলার প্রস্তুতি নিয়ে থাকে, কেন সে এই ঘৃণ্য কাজটি করলো? লন্ডনবাসী এবং এই নিষ্ঠুর হামলায় যারা হতাহত হয়েছেন তাদের পরিবারের কাছে তুলে ধরার জন্যই তা করতে হবে।

মি: বসু বলেন যে, তারা নিশ্চিত হতে চান খালিদ মাসুদ একাই সন্ত্রাসী মতাদর্শ দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়েছিল, নাকি অন্য কেউ তাকে উৎসাহ, সমর্থন কিংবা নির্দেশনা দিয়েছে।

যদি এ ঘটনায় অন্য কেউ জড়িত থাকে, তাদেরও বিচারের মুখোমুখি করা হবে বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

আরো পড়ুন:

হিজাব পরা যে মেয়ের ছবি নিয়ে তোলপাড়

লন্ডন হামলাকারীর ছিলো বহু নাম, ছিলো তিনটি জেলে

লন্ডন হামলা: এ পর্যন্ত আমরা যা জানি

এদিকে লন্ডন হামলার প্রেক্ষাপটে, ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাম্বার রাড বলেছেন, "সন্ত্রাসীদের লুকানোর কোনও ধরনের জায়গা থাকা উচিত নয়"।

ইন্টারনেটে বিশেষভাবে সুরক্ষিত যে মেসেজ সার্ভিসগুলো সেগুলোতে গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর প্রবেশাধিকার থাকা উচিত বলে মনে করেন ।

ওয়েস্টমিনস্টারে হামলাকারী ব্যক্তি খালিদ মাসুদ ঘটনার মাত্র দু‌ মিনিট আগেও 'হোয়াটস অ্যাপ' নামে মেসেজিং সার্ভিস ব্যবহার করেছিলো বলে খবর পাওয়া গেছে ।

অ্যাম্বার রাড বলেছেন সন্ত্রাসবিরোধী কার্যক্রমে সহায়তা পাবার জন্য প্রযুক্তিবিষয়ক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে আলোচনায় বসবেন এবং তাদের সাথে কাজ করার আহ্বানও জানাবেন তিনি।

"হোয়াটসঅ্যাপের মতো আরো অনেক ধরনের সার্ভিস রয়েছে সেগুলো যেস সন্ত্রাসীদের যোগাযোগের গোপন মাধ্যম হয়ে না উঠে সেই আহ্বানই আমরা জানাতে চাই"-বলছেন মিস রাড। 

ছবির কপিরাইট PA
Image caption ওয়েস্টমিনস্টার হামলায় খালিদ মাসুদসহ পাঁচজন নিহত হয়

সম্পর্কিত বিষয়