'শিশুদের মাঝখানে বসিয়ে আত্মঘাতী বিস্ফোরণ'

  • ১ এপ্রিল ২০১৭
Image caption গত দু'সপ্তাহে বাংলাদেশে জঙ্গিবিরোধী অভিযানের সময় বেশ কয়েকটি 'আত্মঘাতী বিস্ফোরণের' ঘটনা ঘটেছে

মৌলভীবাজারের নাসিরপুরে জঙ্গিরা শিশুদের মাঝখানে বসিয়ে তাদের পাশে আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটানো হলে শিশুদের মৃত্যু হয় বলে বলছে পুলিশ।

পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে শনিবার সাংবাদিকদের বলেছেন, নাসিরপুরের জঙ্গি আস্তানায় শিশুদের মাঝখানে রেখে তিন পাশে তিনজন সুইসাইডাল ভেস্ট বেঁধে বিস্ফোরণ ঘটায়।

তিনি জানান, এতে শিশুদেরও মৃত্যু হয়।

নাসিরপুরের ওই বাড়িতে মোট চারটি শিশুর মৃতদেহ পাওয়া গেছে। এদের বয়স কয়েক মাস থেকে ১০ বছর পর্যন্ত।

এছাড়াও এই অভিযানে একজন পুরুষ ও দু'জন নারী নিহত হয়েছে।

'সিলেটের হামলাকারীরা বড়হাটে আশ্রয় নিয়েছিলো'

'আত্মঘাতী বিস্ফোরণে' নিহতদের চারজনই শিশু'

বড়হাটে অপারেশন শেষে শনিবার দুপুরে মি. ইসলাম বলেছেন, যারা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে নিহত তিনজনের কারোরই পেট ও কোমরের অংশ নেই। তাদের শরীরে তার জড়িয়ে আছে।

তিনি বলেন, "তারা ইসলামবিরোধী, দেশবিরোধী, মানবতাবিরোধী। কারণ এরা নিজেদের শিশুদেরকেও রেহাই দেয়নি।"

"এরা এতোটাই জঘন্য। এরা আসলে দৈত্য। দানব শ্রেণির। এরা মানুষ নয়,' বলেন তিনি।

২৫শে মার্চ রাতে যেভাবে গ্রেফতার করা হয়েছিলো শেখ মুজিবকে

জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে গত বুধবার ভোর থেকে বাড়িটি ঘিরে রেখে অভিযান চালানোর পর গত বৃহস্পতিবার সাতটি লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ বলছে, বুধবার রাতেই আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটিয়ে তারা নিহত হয় বলে তারা ধারণা করছেন।

শ্রীলঙ্কার সাথে শেষ ম্যাচে কেন পারলো না বাংলাদেশ