সিরিয়ায় রাসায়নিক আক্রমণে শিশুসহ ৫৮ জন নিহত

ছবির কপিরাইট এএফপি
Image caption খান শেখুনে রাসায়নিক অস্ত্রে আক্রান্ত একটি শিশু

উত্তর পশ্চিম সিরিয়ায় একটি বিদ্রোহী-নিয়ন্ত্রিত শহরে রাসায়নিক অস্ত্রের আক্রমণ চালানো হয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে - যাতে কমপক্ষে ৫৮ জন নিহত হয়েছে।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস নামে একটি সংস্থা বলেছে, ইদলিব প্রদেশের খান শেখুন নামে ওই শহরটির ওপর আজ সকালে সিরিয়ার সরকারি বিমান বাহিনী বা রুশ জেট থেকে হামলা চালানো হয়।

এর পর শিশু সহ বহু লোককে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা যায় - যারা শ্বাস নিতে পারছিল না।

আরো পড়ুন : শেখ হাসিনার ভারত সফরের সময় প্রতিরক্ষা চুক্তি হবে কি?

চিকিৎসাকর্মীরা জানিয়েছেন, আক্রান্তদের মধ্যে অজ্ঞান হয়ে যাওয়া, বমি করা বা মুখে ফেনা উঠতে থাকার মতো লক্ষণ দেখা গেছে।

মানবাধিকার সংস্থাটি বলছে, নিহতদের মধ্যে অন্তত ১১টি শিশু রয়েছে।

ছবির কপিরাইট বিবিসি
Image caption আক্রান্তদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে

আক্রান্তদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল এমন একটি ক্লিনিকেও রকেট হামলা চালানো হয়।

নিহতের সংখ্যা নিয়েও নানা ধরণের তথ্য পাওয়া গেছে।

একটি দাতব্য সংস্থার কর্মী মোহাম্মদ রসুল বিবিসির আরবি বিভাগকে বলেছেন, নিহতের সংখ্যা ৬৭ এবং আহত হয়েছে ৩০০ জন।

ছবির কপিরাইট এএফপি
Image caption রাসায়নিক আক্রমণে শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত আরেক ব্যক্তি

বিদ্রোহীদের সমর্থক একটি বার্তা সংস্থা বলছে, ওই আক্রমণে ১০০ জন নিহত হয়েছে।

ইদলিব মিডিয়া সেন্টার নামে একটি বিদ্রোহী-সমর্থক সংস্থা বলছে, তাদের ধারণা সারিন নামের নার্ভ-গ্যাস আক্রমণ চালানো হয়েছে।

সিরিয়ার সরকারের বিরুদ্ধে এর আগেও রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে - কিন্তু তারা তা বরাবরই অস্বীকার করেছে।

আরো পড়ুন: যে কারণে বাংলাদেশ সরকার ফেসবুক বন্ধ করতে চায় না

ভারতীয় সাংবাদিকের চোখে বাংলাদেশের জঙ্গীবিরোধী অভিযান

সম্পর্কিত বিষয়