নারী সহকর্মীদের চুল কেটে দিলেন নাইজেরিয়ার এক পুলিশ কর্মকর্তা

ছবির কপিরাইট FRSC RIVERS STATE FACEBOOK PAGE
Image caption ফেসুবকে এ ছবি ছড়িয়ে পড়ার পর অনেকে তার নিন্দা করেছেন।

মাথায় লম্বা চুল থাকলে অনেক জায়গায় সেটিকে 'শৃঙ্খলা পরিপন্থী' হিসেবে গণ্য করা হয়।

পথে-ঘাটে অনেকের চুল কেটে 'শায়েস্তা' করার ঘটনা বিভিন্ন সময় খবর হয়। এবার নাইজেরিয়ার এক সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা তার অধীনস্থ নারী সহকর্মীদের চুল কেটে দিয়ে বেশ বিপাকে পড়েছেন।

নাইজেরিয়ার সড়ক নিরাপত্তা সংস্থার একজন সিনিয়র কমান্ডার নিজ হাতে কাঁচি নিয়ে তার অধীনস্থ নারী অফিসারদের লম্বা চুল কেটে ছোট করে দিয়েছেন।

আরো পড়ুন সুপ্রিম কোর্ট চত্বরের ভাস্কর্যের অপসারণ চান হাসিনাও

দাওরায়ে হাদিস ডিগ্রি এখন মাস্টার্সের সমমানের

খুব ভোরে পুলিশ সদস্যদের এক প্যারেড পরিদর্শনে গিয়ে সিনিয়র কমান্ডার দেখলেন যে অনেক নারী সদস্যদের লম্বা চুল রয়েছে। দেরি না করে সাথে সাথে তিনি নিজ হাতে কাঁচি চালানো শুরু করেন।

নাইজেরিয়ার সড়ক নিরাপত্তা সংস্থায় কর্মরত নারী পুলিশ সদস্যদের জন্য চুল রাখার কিছু নিয়ম-কানুন আছে। তবে তারা লম্বা চুল রাখতে পারবেনা সে কথা নিয়মের কোথাও উল্লেখ নেই।

সংস্থাটির একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সিনিয়র কমান্ডার যে কাজ করেছেন, সেটি সম্পূর্ণ নিয়মের বাইরে।

নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মোহাম্মাদু বুহারির একজন মুখপাত্র বিষয়টিকে নারীদের জন্য অবমাননাকর হিসেবে বর্ণনা করেছেন। তবে অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তার কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

নারী সদস্যদের চুল কাটার ছবি নাইজেরিয়ার সড়ক নিরাপত্তা সংস্থার ফেসবুকে পাতায় পোস্ট করা হয়েছিল।

এরপর সোশ্যাল মিডিয়ায় সে ছবিগুলো ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে তীব্র সমালোচনার মুখে সে ছবিগুলো অফিসিয়াল ফেসবুক পাতা থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

সড়ক নিরাপত্তা সংস্থার কর্তৃপক্ষ বলছে এ ঘটনার সাথে জড়িত সব কর্মকর্তাকে ডাকা হয়েছে এবং ইতোমধ্যে একটি তদন্ত শুরু হয়েছে।

সম্পর্কিত বিষয়