গুলশান হামলার তথ্য প্রদানে অসহযোগিতার মামলায় খালাস তাহমিদ

  • ১৬ এপ্রিল ২০১৭
ছবির কপিরাইট Facebook
Image caption তাহমিদ হাসিব খান (ছবিটি ফেসবুক থেকে নেয়া)

ঢাকার গুলশানে গত জুলাইতে হোলি আর্টিজান রেস্তোরায় হামলার ঘটনায় তথ্য প্রদানের ক্ষেত্রে পুলিশকে অসহযোগিতা করার মামলায় তাহমিদ হাসিব খানকে খালাস দিয়েছে আদালত।

হোলি আর্টিজানে হামলার পর যে ১৩ জন জিম্মি সেখান থেকে জীবিত ফিরে আসেন তাদের মধ্যে ছিলেন তাহমিদ খান। মি. খান এবং হাসনাত করিম নামের অপর একজনকে এরপর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক রাখা হয়।

গুলশান হামলা থেকে ফিরে আসা এই দুজনকে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক দেখিয়েছিল পুলিশ।

তার মধ্যে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক হাসনাত করিমকে মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

পরবর্তীতে পুলিশ জানায়, মি. খানের বিরুদ্ধে তারা কোন তথ্য-প্রমাণ পাননি। পরে তাহমিদকে ছেড়ে দেয়া হয়।

তবে তদন্তে পুলিশকে অসহযোগিতার ও তথ্য দিতে অস্বীকৃতির অভিযোগ আনা হয় তার বিরুদ্ধে।

ছবির কপিরাইট COLLECTED
Image caption হামলাকারীর সাথে অস্ত্র হাতে তাহমিদের এ ছবি অনেক প্রশ্নের জন্ম দিয়েছিল।

গত ২১শে মার্চ ঐ মামলার শুনানি শেষ হয়। আজ তাকে অভিযোগ থেকে খালাস দিল ঢাকা মহানগর আদালত।

কানাডার একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তাহমিদের মুক্তির জন্য তার পরিবার এবং বন্ধুদের তরফ থেকে আন্তর্জাতিকভাবে ব্যাপক প্রচারণাও করা হয়েছিল।

হোলি আর্টিজান হামলার কয়েকদিন আগে তিনি দেশে ফিরেছিলেন।

হোলি আর্টিজান বেকারির ছাদে একজন হামলাকারীর সাথে অস্ত্র হাতে তাহমিদের দাড়িয়ে থাকার ছবি বহু প্রশ্নের জন্ম দিয়েছিল। সে ছবিতে তাহমিদ হাসিব খানের সাথে হাসনাত করিমও ছিলেন।

কিন্তু তাহমিদ এবং হাসনাতের পরিবার বরাবরই দাবী করে আসছে তারা ছিলেন পরিস্থিতির শিকার ।

বিবিসি বাংলার আরও খবর:

উত্তর কোরিয়ার ব্যর্থ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার অর্থ কী?

বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্ক ব্যক্তি ১১৭ বছর বয়সে মারা গেছেন

তুরস্কে গণভোট: কী পরিবর্তন আনতে চান এরদোয়ান?

ফেসবুক ব্যবহারে সারা পৃথিবীতে দু'নম্বরে ঢাকা

সম্পর্কিত বিষয়