যুক্তরাষ্ট্রে এক আততায়ী গুলি চালিয়ে হত্যাকাণ্ডের দৃশ্য সরাসরি সম্প্রচার করল ফেসবুকে

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption অভিযুক্ত স্টিভ স্টিফেন্স

ক্লিভল্যান্ডের পুলিশ এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চালাচ্ছে, যে ফেসবুকের লাইভে এসে এক ব্যক্তিকে গুলি চালিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ।

নিহত ব্যক্তিটির নাম রবার্ট গুডউইন। তার বয়েস ৭৪ বছর।

স্টিভ স্টিফেন্স নামের ওই অভিযুক্ত পরে ফেসবুকে পৃথক আরেকটি ভিডিও পোস্ট করেছে, যেখানে সে বলছে, সে এখন পর্যন্ত ১৩ জনকে হত্যা করেছে এবং আরো মানুষকে হত্যা করতে আগ্রহী।

ক্লিভল্যান্ডের পুলিশ প্রধান ক্যালভিন উইলিয়ামস বলেছেন, তারা একটি হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে নিশ্চিত, বাদবাকি হত্যাকাণ্ডের শিকারদের সম্পর্কে তাঁর জানা নেই।

ক্লিভল্যান্ডের পুলিশ তাদের ওয়েবসাইটে অভিযুক্ত মি. স্টিফেন্সের একটি ছবি প্রকাশ করেছে এবং বলেছে সে ৬ ফুট ১ ইঞ্চি দীর্ঘ একজন কৃষ্ণাঙ্গ।

ধারণা করা হচ্ছে সাদা অথবা ক্রিম রঙের একটি এসইউভি'র আরোহী সে।

নিহত মি. গুডউইনকে সে দৈব চয়নের মাধ্যমে বেছে নিয়েছে বলে মনে করছে পুলিশ।

ফেসবুকে হত্যাকাণ্ডের সরাসরি সম্প্রচার এটাই প্রথম নয়।

গত জুন মাসে শিকাগোর রাস্তায় এক ব্যক্তি নিজের ভিডিও সরাসরি সম্প্রচারের সময় গুলিতে নিহত হন।

গত মার্চ মাসে একজন অজ্ঞাত আরেক ব্যক্তি ফেসবুকে সরাসরি সম্প্রচারের সময় ষোল বার গুলিবিদ্ধ হন।

ফেসবুকের লাইভ স্ট্রিমিংয়ের মাধ্যমে যে কেউই সরাসরি ভিডিও সম্প্রচার করতে পারেন।

২০১০ সালে এই ফিচার চালু হয় কিন্তু সাম্প্রতিক মাসগুলোতে এই ফিচার বিশ্বজুড়ে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

আরো পড়ুন:

ফেসবুকের শুদ্ধি অভিযান ও 'লাইকের রাজা' বৃত্তান্ত

গণভোটে জয় প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে কতটা শক্তিশালী করবে?

তুরস্কের গণভোট: বিজয় দাবি করলেন এরদোয়ান