ভারতে সোনু নিগমকে মাথা কামাতে বলা সেই পীরকে 'হত্যার হুমকি'

ছবির কপিরাইট UNK
Image caption সৈয়দ শাহ আতিফ আলি আল-কাদরি

ভারতে বলিউডের জনপ্রিয় গায়ক সোনু নিগমকে 'মাথা ন্যাড়া করে গলায় জুতোর মালা পরানোর' চ্যালেঞ্জ দিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের যে মুসলমান নেতা, সেই পীরকে আজ হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে।

পুলিশের কাছে ই-মেল পাঠিয়ে ইতিমধ্যেই অভিযোগ জানিয়েছেন ওই পীর, সৈয়দ শাহ আতিফ আলি আল-কাদরি।

মাইকে আজানের শব্দে বিরক্তি প্রকাশ করে গায়ক সোনু নিগম যে বিতর্কিত টুইট করেছিলেন কয়েকদিন আগে, তারপরে মি. আল কাদরি বলেছিলেন - 'সোনু নিগমকে যে মাথা ন্যাড়া করিয়ে গলায় ছেঁড়া জুতোর মালা পরিয়ে সারা দেশের সব নাগরিকের বাড়িতে ঘোরাতে পারবে, তাকে তিনি দশ লাখ টাকা পুরষ্কার দেবেন।'

ওই ঘোষণার পরে মি. নিগম নিজেই মাথা ন্যাড়া করে বলেছিলেন, পীর সাহেব যেন ইনামের টাকাটা তৈরী রাখেন।

তবে তখন মি. আল কাদরি জানিয়েছিলেন, তিনটি শর্ত পূরণ না করলে ঘোষিত দশ লাখ টাকার পুরষ্কার তিনি দেবেন না।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন:

ওয়েলসে মেয়েদের খৎনার ঘটনা ধরা পড়লো এক বছরে ১২৩টি

কাশ্মিরে যাযাবরদের ওপর 'গো-রক্ষকদের' হামলা

ছবির কপিরাইট এনডিটিভি
Image caption মাথা কামানোর পর সোনু নিগম

মি. কাদরি বিবিসি বাংলাকে বলছিলেন, "আজ দুপুরে আমি শ্বশুরবাড়িতে থাকাকালীন একটা এস এম এস আসে। সোনু নিগমের বিরুদ্ধে আমি কেন কথা বলেছি, সেই প্রশ্ন তুলে পরিবার সহ আমাকে গুলি করে ঝাঁঝরা করে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে।"

"এস এম এসটা আসার পরেই আমি ওই নম্বরে ফোন করি। প্রথমে কেউ ধরে নি, তারপর যতবারই চেষ্টা করেছি ফোন করতে ততবারই নট রিচেবল জানিয়েছে। কমিশনারের কাছে ইমেল করেছি ঘটনাটা জানিয়ে।"

পুলিশের কাছে যে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন মি. আল কাদরি, তার সঙ্গেই জমা দিয়েছেন হুমকি এস এম এসটিও।

ছবির কপিরাইট বিবিসি
Image caption হত্যার হুমকির বিবরণ দিয়ে পুলিশকে করা আল-কাদরির ই-মেল

রোমান হরফে হিন্দি ভাষায় লেখা হয়েছে ওই এস এম এসটি।

একটি প্রচলিত গালি দিয়ে এস এম এস শুরু হয়েছে।

তাতে লেখা হয়েছে, "হিন্দুস্তানের গর্ব সোনু নিগমের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস তোর হলো কী করে? শোন কাদরি, এরপরে যদি সোনুর বিরুদ্ধে যদি একটা কথাও বলিস তাহলে তোকে আর তোর পরিবারকে বন্দুকের গুলিতে ঝাঁঝরা করে দেব। কারও বাবা তোকে বাঁচাতে পারবে না।"

মি. কাদরি বলছেন, ওই হুমকির পরে তাঁর স্ত্রী, শিশু সন্তান এবং শ্বশুরবাড়ির লোকজনরাও আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন।

কলকাতা পুলিশের জয়েন্ট কমিশনার বিশাল গর্গ বলছেন ইমেলে পাঠানো অভিযোগটি তাঁর হাতে এখনও পৌঁছয় নি। কিন্তু অভিযোগ এলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নিশ্চই নেওয়া হবে।

ঝিনাইদহের জঙ্গী আস্তানা থেকে রাসায়নিক পদার্থ উদ্ধার

ভারতে ইঁদুর কামড়ে খরাপীড়িত কৃষকের প্রতিবাদ

বাংলাদেশের জনপ্রিয় শিল্পী লাকী আখন্দের মৃত্যু

গ্রিক মূর্তি অপসারণ প্রশ্নে ইসলামী দলগুলোর ঐক্য?

সম্পর্কিত বিষয়