রেল দুর্নীতি: সেই ইউসুফ মৃধার ৪ বছরের জেল

  • ২৭ এপ্রিল ২০১৭
Image caption বাংলাদেশ রেলওয়ের ইতিহাসে আলোচিত ঘটনা ছিলো মন্ত্রীর সহকারীর গাড়ি থেকে ৭৫ লাখ টাকা উদ্ধারের ঘটনা

বাংলাদেশ রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের সাবেক জিএম ইউসুফ আলী মৃধাসহ তিনজনকে দুর্নীতির দুটি মামলায় চার বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

দণ্ডপ্রাপ্ত অন্য দুজন হলেন—রেলওয়ের সাবেক দুই কর্মকর্তা গোলাম কিবরিয়া ও হাফিজুর রহমান।

মামলাগুলোতে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী বিবিসিকে বলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের দায়ের করা দুটি মামলায় তাদের দু বছর করে চার বছরের কারাদণ্ড দেয় চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালত।

এছাড়া ২০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়েছে তাদের যা না দিলে অতিরিক্ত ছয়মাস জেল খাটতে হবে।

এর আগে গত বছর অবৈধ সম্পদ অর্জনের একটি মামলাতেও তিন বছরের সাজা হয় মৃধার।

২০১২ সালের ৯ এপ্রিল মধ্যরাতে ঢাকায় বিজিবি সদর দপ্তরে তখনকার রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের সহকারী ওমর ফারুক তালুকদারকে বহনকারী গাড়িতে বিপুল পরিমাণ টাকা পাওয়ার ঘটনায় দেশজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

আরও পড়ুন:

যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানতে সক্ষম উত্তর কোরিয়া?

কাশ্মীর কি শেষ পর্যন্ত ভারতের হাতছাড়া হতে চলেছে?

পরে দেখা যায় সেই গাড়িতে আরও কয়েকজনের সাথে ইউসুফ আলীকে মৃধাকেও পাওয়া যায়। পরে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

এ ঘটনায় চাকরীচ্যুত হন রেলমন্ত্রীর সহকারী ওমর ফারুক তালুকদারও।

পত্র পত্রিকায় লেখা হয়, গাড়িতে পাওয়া ৭৫ লাখ টাকা প্রকৃতপক্ষে রেলে নিয়োগ প্রক্রিয়ায় দুর্নীতি করে তোলা টাকার একটি অংশ।

এরপর ২০১০ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে রেলওয়েতে বিভিন্ন পদে নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগে চট্টগ্রামের কোতোয়ালী থানায় ইউসুফ আলী মৃধার বিরুদ্ধে ১৪টি মামলা করে দুদক।

২০১৪ সালের ৩রা মার্চ তিনি আদালতে আত্মসমর্পণ করেন।