জার্মান পার্লামেন্টে বোরকার উপর আংশিক নিষেধাজ্ঞা অনুমোদন

  • ২৮ এপ্রিল ২০১৭
সরকারী কর্মকর্তা, বিচারক এবং সেনাবাহিনীতে কর্মরত মুসলমান নারীরা তাদের কর্মক্ষেত্রে বোরকা পরতে পারবেন না ছবির কপিরাইট বিবিসি
Image caption সরকারী কর্মকর্তা, বিচারক এবং সেনাবাহিনীতে কর্মরত মুসলমান নারীরা তাদের কর্মক্ষেত্রে বোরকা পরতে পারবেন না

জার্মানির পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষে বোরকার উপর আংশিক নিষেধাজ্ঞা অনুমোদন করা হয়েছে।

গত ডিসেম্বরে জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মের্কেল মুসলমান মহিলাদের সম্পূর্ণ মুখ ঢাকা বোরকা আইনগত ভাবে নিষিদ্ধ করার বিষয়টি উত্থাপন করেছিলেন।

তারই ধারাবাহিকতায় বোরকার উপরে আংশিক নিষেধাজ্ঞা অনুমোদিত হল ।

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী থমাস দে মেজিয়ার বলেছেন যে এর মাধ্যমে জার্মানি অন্য সংস্কৃতির বিষয়ে ঠিক কতটা সহনশীলতা দেখাবে তা সুনির্দিষ্ট করা হল।

গত দু বছরে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে জার্মানিতে দশ লাখের বেশি মুসলমান অভিবাসী এসেছে।

মুসলমান নারীদের ভেতরে সম্পূর্ণ মুখ ঢাকা নেকাব বা বোরকার প্রচলন রয়েছে।

এই নিষেধাজ্ঞা অনুযায়ী সরকারী কর্মকর্তা, বিচারক এবং সেনাবাহিনীতে কর্মরত মুসলমান নারীরা তাদের কর্মক্ষেত্রে বোরকা ব্যাবহার করতে পারবেন না।

তারও আগে জার্মানির প্রায় ১৬টি রাজ্যে শিক্ষকদের বোরকা ব্যাবহারে নিষেধাজ্ঞা ছিল।

কেবল জার্মানিতে নয়, লাগাতার সন্ত্রাসী হামলার কারণে ,জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় ইউরোপের অন্যান্য দেশেও মুসলমানদের হিজাব বা বোরকার বিষয়ে বিতর্ক ছিল।

তবে বহু সংস্কৃতির ধারনায় বিশ্বাসী ইউরোপে মত প্রকাশের স্বাধীনতা এবং ভিন্নধর্মীয় অনুভূতির বিষয়ে শ্রদ্ধাশীলতার কারণে এতদিন এ ধরনের নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে ছাড় দিতে দেখা গেছে ইউরোপের অন্যান্য দেশে ।

সম্পর্কিত বিষয়