চীনে সিআইএ'র কার্যক্রমে ধস নেমেছে: নিউইয়র্ক টাইমস

বেইজিং এ মার্কিন দূতাবাস প্রহড়ায় চীনা পুলিশ ছবির কপিরাইট এএফপি
Image caption বেইজিং এ মার্কিন দূতাবাস প্রহড়ায় চীনা পুলিশ

মার্কিন দৈনিক নিউইয়র্ক টাইমসের খবরে বলা হচ্ছে, ২০১০ থেকে ২০১২ এই দুই বছরের মধ্যে চীন অন্তত আঠারো থেকে কুড়িজন সিআইএ এজেন্টকে হত্যা বা কারাবন্দী করেছে।

এদের মধ্যে একজন এজেন্ট বা সংবাদ সংগ্রহকারীকে একটি চীনা সরকারী কার্যালয় চত্বরেই গুলি করা হয়, যাতে অন্যরা সাবধান হয় এবং সিআইএ'র হয়ে কাজ করতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলে।

আর এর ফলে গত কয়েক বছর ধরেই, চীনে মার্কিন গোয়েন্দা কর্মসূচী কার্যত ভেঙে পড়েছে।

মার্কিন কর্মকর্তারা বলছেন, মার্কিন গোয়েন্দা নিরাপত্তা ব্যবস্থায় গত কয়েক দশকের মধ্যে এটি সবচাইতে খারাপ ধরণের সংকট।

কেউ কেউ মনে করছে, ছদ্মবেশী মার্কিন গোয়েন্দারা যে ধরণের যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করতেন তা ধরে ফেলেছে চীনা গোয়েন্দারা।

ছবির কপিরাইট বিবিসি
Image caption মার্কিন গোয়েন্দা নিরাপত্তা ব্যবস্থায় গত কয়েক দশকের মধ্যে এটি সবচাইতে খারাপ ধরণের সংকট

সিআইএ কর্মকর্তারা নিউ ইয়র্ক টাইমসকে বলেছেন, চীনে সিআইএ হ্যাক হয়েছে, নাকি ভেতর থেকে কেউ সেখানে কর্মরত এজেন্টদের সম্পর্কে চীনা সরকারকে গোপনে তথ্য দিচ্ছে—এ ব্যাপারে এখনো তারা নিশ্চিত নন।

সিআইএ নিউইয়র্ক টাইমসের এ খবর সম্পর্কে এখনো কোন প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

তবে, ঐ প্রতিবেদনে চারজন সাবেক সিআইএ কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, ২০১০ সাল থেকেই চীন সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকে স্পর্শকাতর তথ্য সংস্থাটির কাছে আসা কমতে শুরু করে।

২০১১ সালের শুরু থেকে সেখানে কর্মরত সিআইএ এজেন্টরা হঠাৎ করে উধাও হয়ে যেতে শুরু করেন।

এরপর সিআইএ এবং এফবিআই যৌথভাবে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করে, যার সাংকেতিক নাম ছিল "হানি ব্যাজার"।